মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার ১৫ টি সহজ উপায়

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার উপায়, তরুনদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আগ্রহের বিষয়। এখন প্রতিটি মানুষের হাতে হাতে মোবাইল ফোন। তাও আবার যেসে ফোন নয়, বরং স্মার্টফোন।

বর্তমানে মানুষ শুধু আর কথা বলার জন্যে মোবাইল ব্যবহার করে না। ভিডিও দেখা, খবর পড়া, গেম খেলা, বিনোদনসহ ইত্যাদি কাজে এখন মানুষ মোবাইল ব্যবহার করে থাকে। এমনকি অনলাইন থেকে টাকা আয় করার জন্য মোবাইল এখন খুব জনপ্রিয় একটি উপকরন হয়ে দাড়িয়েছে।

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার কথা আসলে অনেকে হয়তো ভাবে “এটিও কি সম্ভব!”। কিন্তু হ্যা, বিভিন্ন উপায়ে মানুষ মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করছে। সে উপায়গুলোই আজকের পোস্টে তুলে ধরবো।

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার উপায় জানতে সম্পূর্ন আর্টিকাল মনযোগ দিয়ে পড়ুন। আশা করি উপকার পাবেন।

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার উপায়

আপনার যদি একটি স্মার্টফোন ও ইন্টারনেট কানেকশন থাকে, তাহলে আজ থেকেই ইনকাম শুরু করতে পারবেন। মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকামের বিভিন্ন উপায় আছে। এখানে আমরা মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার ১৫টি উপায় নিয়ে আলোচনা করবো। 

১। ব্লগিং

আলোচনার প্রথমেই থাকবে ব্লগিং। ব্লগিং হচ্ছে একটি মুক্ত ব্যবসা, যেখানে একটি ওয়েবসাইট বানিয়ে সেখানে লেখালেখি করার মাধ্যমে টাকা আয় করা যায়।

ব্লগিং বর্তমান কালের খুবই জনপ্রিয় একটি অনলাইন পেশা। মোবাইল দিয়ে খুব সহজেই ব্লগিং করা যায়। এর জন্যে খুব বেশি সময়, টাকা কিংবা অন্য কোনো রিসোর্স এর প্রয়োজন নেই। অন্য চাকরির পাশাপাশি অনায়াসেই ব্লগিং করা যায়।

ব্লগিং এর শুরুতে কিছু কন্টেন্ট পোস্ট করার পর গুগল এডসেন্স এপ্রুভাল নিতে পারলে আপনি ইনকাম শুরু করতে পারবেন। কিছু ব্লগার সাইট থেকে ফ্রি তে ব্লগিং করা যায়। আবার অল্প কিছু টাকা খরচ করে ডোমেইন ও হোস্টিং কিনতে পারলে সারাজীবন নির্বিঘ্নে আপনি ইনকাম করতে পারবেন।

প্লাগারিজম ফ্রি, তথ্য বহুল ও মান সম্মত কন্টেন্ট লিখতে পারলে আপনার ব্লগ খুব তাড়াতাড়ি জনপ্রিয় হয়ে যাবে। এছাড়া অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমেও ব্লগিং থেকে আয় করা যায়।

সব দিক বিবেচনায় মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার উপায় হিসেবে আমরা ব্লগিং কে প্রথম স্থান দিয়েছি।  

২। ইউটিউবে ভিডিও তৈরি

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার উপায় হিসেবে ইউটিউবিং করাকে দ্বিতীয় স্থানে রাখতে হয়। কেননা ইউটিউবে ভিডিও তৈরির জন্যে একটি মোবাইল ও ইউটিউব চ্যানেল থাকাই যথেষ্ট এবং এখানে টাকা আয় করার প্রচুর সুযোগ রয়েছে।

স্মার্টফোনের সাহায্যে ভিডিও রেকর্ডিং থেকে শুরু করে, এডিটিং ও আপলোড করা পর্যন্ত সব কাজই করা সম্ভব। কন্টেন্ট তৈরির জন্যে প্রথমে একটি নির্দিষ্ট টপিক নির্বাচন করতে হবে। এক্ষেত্রে অবশ্যই বর্তমান ও ভবিষ্যতের চাহিদা মাথায় রাখতে হবে। কন্টেন্ট যদি শিক্ষামূলক ও মানসম্মত হয় তাহলে চ্যানেল খুব তাড়াতাড়ি জনপ্রিয় হবে। 

ব্লগিং এর মত ইউটিউবেও গুগল এডসেন্স এর এপ্রুভাল এর প্রয়োজন হয়। তবে এর জন্যে ইউটিউব চ্যানেলের ২টি শর্ত আছে। 

  • মোট ১০০০ সাবস্ক্রাইবার থাকতে হবে এবং
  • ৩৬৫ দিনের মাঝে ৪ হাজার ঘণ্টা ওয়াচ টাইম থাকতে হবে।

এই শর্ত দুইটি পূরণ করতে পারলে গুগল এডসেন্স এর এপ্রুভাল পাবেন অর্থাৎ মানিটাইজেশন হবে। একবার ইউটিউব মানিটাইজেশন হয়ে গেলে আপনি সারাজীবন এই চ্যানেল থেকে ইনকাম করতে পারবেন। চ্যানেল জনপ্রিয় হয়ে গেল ভিডিওর পাশাপাশি বিভিন্ন কোম্পানির স্পন্সরশীপ, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ইত্যাদির মাধ্যমেও ইনকাম করতে পারবেন। 

৩। মোবাইলে ফ্রিল্যান্সিং

তরুণ থেকে মধ্যবয়সী, বেকার থেকে চাকুরীজীবী, সব বয়সের মানুষের কাছেই ফ্রিল্যান্সিং জনপ্রিয় ও আকর্ষণীয় পেশাতে পরিণত হয়েছে। এর একটি অন্যতম কারণ হলো স্মার্ট ফোনের সাহায্যে সহজেই করা যায়। ফ্রিল্যান্সিং এর কিছু কাজ আছে যেগুলো মোবাইল দিয়ে অনায়াসেই করা যায়। যেমনঃ

  • ব্লগ রাইটিং ও কমেন্টিং
  • কপিরাইটিং
  • ট্রান্সলেশন
  • ফোরাম পোস্টিং
  • কন্টেন্ট রাইটিং
  • প্রোডাক্ট ডেসক্রিপশন রাইটিং
  • প্রুফরিডিং
  • ট্রান্সক্রিপশন
  • ভার্চুয়াল এসিস্টেন্ট

এই কাজগুলোর যেকোনো একটি শিখেই আপনি ফ্রিল্যান্সিং করার মাধ্যমে মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

মনে রাখবেন, যে কোনো কাজ শুরুর পূর্বে অবশ্যই সেই কাজের উপর দক্ষতা অর্জন করতে হবে। তবেই আপনি সফল হতে পারবেন।

৪। অনলাইনে শিক্ষকতা

বর্তমান সময়ে অনলাইনে পড়ার প্রচলন অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। কারণ কোচিং সেন্টার বা কারো বাসায় যেয়ে পড়ার চেয়ে বাসায় বসে অনলাইনে পড়ায় বেশি সুবিধাজনক। এজন্যে অনলাইনে টিউশন এখন অনেক জনপ্রিয়। মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনি অনলাইনে শিক্ষকতা করার পেশাটি বেছে নিতেই পারেন।

আপনি কোন বিষয়ে পারদর্শী সেটা প্রথমে ঠিক করুন। এরপর সে বিষয়ের খুঁটিনাটি বিস্তারিত নিয়ে অনলাইনে পড়াতে শুরু করুন। আপনার কিছু ছাত্রছাত্রী থাকলে লাইভে ক্লাস নিতে পারেন অথবা ওয়েবসাইট তৈরি করে সেখানে ভিডিও আকারে লেকচার আপলোড করতে পারেন। বিভিন্ন বিষয়ের উপর ভিডিও কোর্স বানিয়ে সেগুলো বিক্রি করতে পারেন।

অনলাইনে পড়ানোর জন্যে জনপ্রিয় কিছু ওয়েবসাইট এখানে দেয়া হলো।

  • Tutorsheba.com
  • Deshtutor.com
  • Bdtutors.com
  • Bdhometutor.com

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার উপায় হিসেবে শিক্ষকতা করাটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে। কারন, এখানে টাকা, সম্মান উভয়টি অর্জন করা সম্ভব।

৫। ফেসবুক মানিটাইজেশন

ফেসবুক মানিটাইজেশন চালু করেও মোবাইল থেকে ইনকাম করা যায়। ফেসবুক পেজে বিভিন্ন রকম শিক্ষামূলক অথবা ফানি কন্টেন্ট এর ভিডিও তৈরি করে পোস্ট করলে ফলোয়ার আর ভিউয়ার এর সংখ্যা বাড়তে থাকবে। ইউটিউবের মত ফেসবুকেও মানিটাইজেশন এর কিছু শর্ত আছে। যেমনঃ

  • ৬০ দিনের মধ্যে ৬০০,০০০ মিনিট ওয়াচ টাইম থাকতে হবে।
  • ফেসবুক ভিডিও কমপক্ষে ৫টি একটিভ থাকতে হবে। 
  • পেজ ফলোয়ার ১০ হাজার থাকতে হবে। 

ভিডিও শেয়ারের মাধ্যমে ফেসবুকে সহজেই ভাইরাল হওয়া যায় বলেই এখান থেকে মানিটাইজেশনের শর্তগুলো খুব সহজেই পূরণ হয়ে যায়। আমরা যেহেতু ফেসবুকের ব্যবহার  মোবাইল দিয়েই করি, সুতরাং মানিটাইজেশন একবার চালু হয়ে গেলে মোবাইল দিয়ে অনায়াসেই ফেসবুক থেকে আয় করতে পারবেন।

৬। ফেসবুক ই-কমার্স

একটা সময় ছিলো যখন ব্যবসা শুরু করতে অনেক কিছুর প্রয়োজন হত। কিন্ত এখন মোবাইলের মাধ্যমে অনলাইনে স্বল্প পুঁজিতে ই-কমার্স ব্যবসা শুরু করা সম্ভব।  

একটি ফেসবুক পেজ খুলে অল্প কিছু পণ্য নিয়েই ই-কমার্স ব্যবসা শুরু করতে পারবেন। আপনার পণ্যের ছবি পেজে পোস্ট করলেই অসংখ্য কাস্টমারের কাছে পৌঁছে যাবে। ফেসবুক ই কমার্সের সাহায্যে ব্যবসা করলে পণ্যের বিক্রি বহুগুণ বেড়ে যায়। এভাবে শুধুমাত্র মোবাইল ব্যবহার করেই আপনি ব্যবসায়ে লাভবান হতে পারবেন। 

৭। ফটোগ্রাফি

একটা স্মার্টফোন থাকলে এখন অনেকেই শখের বসে ছবি তুলে বেড়ায়। আপনার যদি ফটোগ্রাফির প্রতি ঝোঁক থাকে তাহলে আপনি ফটোগ্রাফি থেকেও মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এখন আর আলাদা করে ক্যামেরা কেনার প্রয়োজন হয় না। স্মার্ট ফোন থেকেই ভালো পিক্সেল এর ছবি তোলা যায়। মোবাইল থেকে তোলা ছবি বা ভিডিও বিক্রি করার জন্যে জনপ্রিয় কিছু ওয়েবসাইট আছে। যেমনঃ

  • ফোপ
  • ড্রিমসাইট
  • স্ন্যাপওয়্যার
  • আইএম
  • শাটারস্টক

এসব ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ধরণের ছবি বেচাকেনা হয়। মোবাইলে দিয়ে যে কোনো ধরণের ফটোগ্রাফি করে এখানে ছবি বিক্রি করে আয় করতে পারবেন।

৮। ইন্সটাগ্রাম থেকে আয়

ফেসবুক ও ইউটিউব এর মত ইন্সটাগ্রামও একটি সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম। আর এখান থেকেও ইনকাম করা যায়। মোবাইল দিয়ে নিয়মিত ছবি ও ভিডিও পোস্ট ও শেয়ার করে ইন্সটাগ্রাম থেকে সহজেই ইনকাম করা যায়।

৯। মাইক্রোওয়ার্ক সাইট 

যদি প্রশ্ন করেন, মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার উপায় কোনটি সবচেয়ে সহজ তাহলে আপনি বলবো মাইক্রোওয়ার্ক সাইটে কাজ করা। কারন এখানে কোনো প্রকার দক্ষতার প্রয়োজন হয় না এবং প্রথম দিন থেকেই ইনকাম করা যায়।

মাইক্রোওয়ার্ক অর্থ ছোট কাজ। ছোট ছোট কিছু সহজ কাজ আছে যেগুলো যে কোনো ডিভাইস অথবা মোবাইল দিয়েই করা যায়। যেমনঃ পোস্ট লাইক, কমেট অথবা শেয়ার করা, ভিডিও দেখা, অ্যাপ ইন্সটল ইত্যাদি। কিছু মাইক্রোওয়ার্ক  সাইট আছে যেখানে এই কাজগুলোর বিনিময়ে আয় করা যায়। যেমন; 

এই সাইটগুলোর কাজ মোবাইল দিয়ে সহজেই করে উপার্জন করা যায়। 

১০। PTC সাইট 

PTC অর্থ Pay Per Click. PTC সাইটগুলোতে কাজ করা খুবই সহজ। এগুলো মোবাইল দিয়ে অনায়াসেই করা যায়। এই সাইটগুলোতে প্রতিদিন কাজ করতে হয়। তবে কাজ শুরুর আগে অবশ্যই সাইটের রিভিউ দেখে নিতে হবে। কারণ PTC সাইটগুলোতে প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আলাদা করে কোনো খরচের প্রয়োজন হয় না। ভালো করে কাজ করতে পারলে ভালো ইনকামের সুযোগ আছে। জনপ্রিয় ৫ টি PTC সাইট এখানে দেয়া হলো।

  • Neobux
  • Ojooo wad
  • Gpt planet
  • Clixsense
  • Offers Bux

১১। রিসেলিং ব্যবসা

রিসেলিং ব্যবসা মূলত কম দামে জিনিষ কিনে বেশি দামে বিক্রি করা। রিসেলিং ব্যবসা ঝুঁকিপূর্ণ হলেও কাস্টমারের আস্থা যদি একবার অর্জন হয়ে যায় তাহলে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয় না। কোনো পণ্য ৮০ টাকায় কিনে ১০০ টাকায় বিক্রি করলে যে টাকাটা লাভ হলো এটাই হলো রিসেলিং ব্যবসা।    

রিসেলিং ব্যবসা অনলাইনেই সবচেয়ে ভালো হয়। ফেসবুকে একটি পেজ খুলে সহজেই এই ব্যবসা করতে পারবেন এবং মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এজন্যে অনেক টাকা পুঁজি কিংবা আলাদা করে পণ্য কিনে স্টোর করে রাখার ঝামেলা নেই।       

১২। Android Apps এর মাধ্যমে আয়

মোবাইল থেকে এন্ড্রয়েড অ্যাপস এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যায়।এজন্যে প্রথমে মোবাইলের Play store থেকে android income apps ইন্সটল করতে হবে। এরপর প্রতিটি অ্যাপস এর নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করলেই আপনি ইনকাম শুরু করতে পারবেন। 

মোবাইল থেকে ইনকাম করা যায় এমন কিছু এন্ড্রয়েড ইনকাম অ্যাপস এর নাম নিচে দেয়া হলো।

  • Google Opinion Rewards
  • Pocket Money: Free Mobile Recharge & Wallet Cash
  • Cashbuddy – New app 
  • Foapp 
  • CashBaron: Play to Earn Money 
  • Cointiply 
  • Truebalance – ফ্রি রিচার্জ app 
  • Champ Cash – Earn money 
  • Don – Daily offers 

১৩। মোবাইলে গেম খেলে ইনকাম

মোবাইলে গেম খেলতে কে না ভালোবাসে!! কেমন হয় যদি গেম খেলতে খেলতে মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করা যায়? বর্তমানে মোবাইলে গেম খেলে ইনকাম করাটা এখন তরুণদের মধ্যে খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। গুগল প্লে স্টোর থেকে android games ইন্সটল করার আগে অবশ্যই রিভিউ দেখে নিতে হবে। ফ্রি তে ডাউনলোড করে গেম খেলে ইনকাম করা যায় এমন কিছু android games এর নাম নিচে দেয়া হলো।

  • Dream11 
  • Rummy Circle
  • MPL – India’s Biggest Gaming App
  • Hago
  • Qureka: Play Quizzes & Learn
  • Money Bingo Clash
  • Yatzy Dice: Win cash
  • WinZo app
  • Whaff reward
  • Big Time Cash 
  • Bulb Smash
  • Garena Free Fire
  • Mobile Legends
  • Call of Duty Mobile

এই গেম গুলো খেলে আপনি বিকাশ থেকে টাকা তুলতে পারবেন। হাত খরচের জন্যে আর অন্য কারো উপর ডিপেন্ড করতে হবে না। 

১৪। লাইক কমেন্ট শেয়ার করে ইনকাম

যুবক থেকে বৃদ্ধ, সব বয়সের মানুষই এখন মোবাইলে ফেসবুক চালায়। ফেসবুকের মত লাইক, কমেন্ট, শেয়ার করেও এখন ইনকাম করা যায়। কিছু ওয়েবসাইটে আছে যেখানে আপনি লাইক কমেন্ট, শেয়ার করে ইনকাম করতে পারবেন। যেমনঃ

এই ওয়েবসাইটগুলোতে প্রথমে ইউজার নেম, ইমেইল, পাসওয়ার্ড, ইত্যাদি তথ্য সঠিক ভাবে পূরণ করে সাইন আপ করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট হলে লগ ইন করে কাজ শুরু করতে পারবেন। কাজ শেষে বিকাশ একাউন্ট এর মাধ্যমে টাকা তুলতে পারবেন। 

১৫। ক্রিপটোকারেন্সি ট্রেডিং এর মাধ্যমে ইনকাম

ক্রিপটোকারেন্সি বলতে সাধারণত বিট কয়েনকে বুঝায়। এটা এক প্রকার ভার্চুয়াল কারেন্সি, যেটা হাতে নেয়া যায় না, কিন্ত বিক্রি করা যায়। ক্রিপটোকারেন্সির দাম কখনো বাড়ে আবার কখনো কমে। ক্রিপটোকারেন্সি ট্রেডিং এর ওয়েবসাইট আছে, যেখান থেকে আপনি ক্রিপটোকারেন্সি কিনতে পারবেন, আবার দাম বাড়লে সুবিধামত অন্যের কাছে বিক্রিও করতে পারবেন। মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার জন্য এটা খুব সহজ একটি কাজ।

সর্বশেষ

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার জন্যে উপরে উল্লিখিত ১৫ টি উপায়ের বিস্তারিত বিবরণ দেয়ার চেষ্টা করেছি। আপনি যদি মন দিয়ে পড়েন তাহলে বুঝতে পারবেন ঘরে বসে মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার উপায় কি এবং কিভাবে তা বাস্তবায়ন করা যায়। তবে যে কোনো কাজের সফলতার জন্যে ধৈর্য্য ও অধ্যবসায় খুবই জরুরি। আশা করি আপনিও ধৈর্য্যের সাথে কাজ করে মোবাইল থেকেই টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

Avatar of Shakib Hasan

Blogger and SEO Expert. Founder of Techbdtricks. I always try to explore something new and let the people know about that. Keep me in your prayers.

Leave a Comment