ব্লগ তৈরি করে আয় করার উপায় – Make Money Blogging

বর্তমানে ব্লগিং হচ্ছে অনলাইন সেক্টরে খুবই সম্ভাবনাময় একটি পেশা। এর সাথে যুক্ত হয়ে ব্লগ তৈরি করে আয় করছে বিভিন্ন শ্রেনীপেশার মানুষ। এটি মূলত লেখালেখি করার একটি পেশা।

ব্লগ তৈরি করে বিভিন্ন উপায়ে টাকা আয় করা যায়। যেমনঃ ব্লগিং করে গুগল এডসেন্স থেকে আয়, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, নিজের প্রোডাক্ট বিক্রি করে, পেইড রিভিউ লিখে, ব্লগে লোকাল বিজ্ঞাপন দেখিয়ে , কোর্স বিক্রি করে, গেস্ট ব্লগিং এর মাধ্যমে, ইত্যাদি আরো অনেক উপায়ে আয় করা সম্ভব।

হয়তো প্রশ্ন আসতে পারে, দুনিয়াতে এতো পেশা থাকতে কেন ব্লগিং পেশাকেই বেছে নিবেন।

ব্লগিং অনেকের পছন্দের একটি পেশা কেননা এখানে আপনি স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারবেন। অতীতে ব্লগ তৈরি করা হতো শুধুমাত্র লেখালেখি করার জন্য। কিন্তু এখন অনেকেই এই ব্লগ থেকে নানা পদ্ধতি অবলম্বন করে অর্থ উপার্জন করছে।

ব্লগ তৈরি করে টাকা-পয়সা আয় করা যায়, এতে সম্পূর্ন ব্যাক্তি স্বাধীনতা আছে, ঘরে বসে ব্লগ লিখে অনলাইনে আয় করার সুবিধা, তাছাড়াও ব্লগিং করার মাধ্যমে অনলাইন ব্র্যান্ড ঘরে তোলা যায়।

তো আজকের আর্টিকেলে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব ব্লগ তৈরি করে কিভাবে টাকা রোজগার করবেন এবং সে সাথে একটি ব্লগ কিভাবে তৈরি করে আয় করতে হয় সেই সম্পর্কে ধারনা দিবো।

তো এর জন্য অবশ্যই আপনাদেরকে আমাদের সম্পূর্ণ  পোস্টটি বিস্তারিত পড়তে হবে।

ব্লগ কাকে বলে

বহুল তথ্যযুক্ত ওয়েবসাইটকে ব্লগ ওয়েবসাইট বলে যেখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন আর্টিকাল পাবলিশ করা হয়। ওয়েবসাইট বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। যেমনঃ ই-কমার্স ওয়েবসাইট, বিজনেস ওয়েবসাইট, ব্যাক্তিগত ওয়েবসাইট ইত্যাদি। কিন্তু এগুলো ব্লগ ওয়েবসাইট নয়।

ব্লগ ওয়েবসাইটে প্রচুর তথ্য থাকে। এবং হাজার হাজার মানুষ বিভিন্ন তথ্য জানার জন্য ব্লগ ওয়েবসাইটে ভিজিট করে থাকে। আবার ব্লগ বলতে শুধুমাত্র একটি নির্দিষ্ট তথ্যযুক্ত আর্টিকালকে বুঝানো হয়ে থাকে।

উদাহরণস্বরূপ, Tech BD Tricks হলো একটি ব্লগ ওয়েবসাইট এবং এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ব্লগ প্রকাশিত হয়।

ব্লগ তৈরি করে আয় করার ৭ টি সহজ উপায় – How to Make Money Blogging Bangla

বর্তমানে ব্লগ তৈরি করে যারা আয় করার চিন্তাটা মাথায় আনেন তাদের অবশ্যই এই বিষয়টা জেনে রাখা জরুরি যে আপনার ব্লগের ভিজিটর থাকতে হবে। ভিজিটর হচ্ছে ব্লগের প্রাণ।আপনার ব্লগে যদি ভিজিটর না থাকে তাহলে আপনি কোনোভাবেই ব্লগ থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন না। আপনার ব্লগে যখন নিয়মিত পাঠক আসবে অর্থাৎ অনেক সংখ্যক ভিজিটর আসবে তখন চাইলে ব্লগ থেকে আপনি অর্থ উপার্জন করতে পারেন। ব্লগ থেকে আয় করার বেশ কয়েকটি উপায় রয়েছে।যে উপায় গুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগ থেকে আয় করতে পারেন। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক ব্লগ থেকে আয় করার ৭ টি উপায় সম্পর্কে:-

১. গুগল এডসেন্স থেকে আয় – Google AdSense 

যারা ব্লগ থেকে আয় করে থাকেন তাদের মধ্যে অধিকাংশ লোকই গুগল এডসেন্স থেকে উপার্জন করেন। ব্লগারদের আয়ের খুবই জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হচ্ছে গুগল এডসেন্স।

তবে গুগল এডসেন্স অবশ্যই আপনার ব্লগ টি গুগল এডসেন্স দ্বারা মনিটাইজ হতে হবে। গুগল এডসেন্স এর কিছু শর্তাদি আছে যে শর্তাদি গুলো পালন করার মাধ্যমে আপনারা খুব সহজেই নিজের ব্লগ টিকে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে  মনিটাইজ করতে পারবেন।

বর্তমান সময়ে ৩০ লক্ষেরও বেশি লোক তাদের ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্সের এড ব্যবহার করে থাকে। এমন অনেক ব্লগার আছেন যারা শুধুমাত্র তাদের ব্লগে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে প্রতি মাসে লক্ষাধিক টাকা উপার্জন করে থাকেন। তাই আপনারা চাইলে ব্লগ তৈরি করে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে সেখান থেকে আয় করতে পারেন। 

২. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে আয় – Affiliate Marketing

ব্লগ থেকে আয় এর আরেকটি জনপ্রিয় উপায় হচ্ছে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে আয়। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে অন্য কোন কোম্পানির প্রোডাক্ট বা পণ্যে আপনি আপনার ব্লগের মাধ্যমে বিক্রি করে দিবেন এবং সেই বিক্রিকৃত লাভের অংশ থেকে তারা আপনাকে নির্দিষ্ট অংশ কমিশন দিবে। 

এইভাবে আপনি যত বেশি প্রোডাক্ট বিক্রি করে দিতে পারবেন আপনার আয়ের পরিমাণ কত বেশি বাড়বে। তবে এক্ষেত্রে আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগের ভালো পরিমান ভিজিটর থাকা লাগবে। কেননা ভিজিটর না থাকলে আপনার প্রোডাক্টের বিষয়ে কেউ জানবে না।

নিজের ব্লগে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার মাধ্যমে প্রতি মাসে লক্ষ টাকা আয় করা সম্ভব। ব্লগ তৈরি করে হাইয়ের মুভি গুলোর মধ্যে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ে খুবই জনপ্রিয় একটি মাধ্যম। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করার জনপ্রিয় কিছু ওয়েব সাইট এর নাম নিচে দেওয়া হলোঃ-

➡️Amazon.Com

➡️Alibaba.com

➡️Flipcart.com

➡️Shopify.com

এই সকল সাইট গুলোর মাধ্যমে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে অর্থ উপার্জন করা সম্ভব।

৩. নিজের প্রোডাক্ট বিক্রি করে আয় – Sell Own Product

আপনি যদি ব্লগিং করার পাশাপাশি কোন ধরনের ব্যবসার সাথে যুক্ত থাকেন তাহলে সেটা আপনি ব্লগের মাধ্যমে করতে পারেন। ধরুন আপনার একটি পোশাকের দোকান রয়েছে এবং পাশাপাশি আপনি ব্লগিং করেন। 

তাহলে আপনি সেই দোকানের বিভিন্ন প্রোডাক্ট এর বিবরণ সম্পর্কে আপনার ব্লগে লিখবেন। আর সেই প্রোডাক্ট এর কিছু ছবি ও তার সাথে দিবেন। তারপরে যেই সকল ভিজিটর গুলা প্রতিদিন আপনার ব্লগে আসে তারা এই সকল প্রোডাক্ট গুলো দেখবে এবং এদের মধ্যে যদি কেউ কোন পণ্য কিনে থাকে তাহলে আপনার আয় হবে।

এই পদ্ধতিতে যদি ব্লগ থেকে আয় করতে হয় তাহলে অবশ্যই ব্লগ-এ প্রচুর পরিমাণে ভিজিটর থাকতে হবে। তাহলেই কেবলমাত্র এই পদ্ধতিতে কাজ করে আয় করা সম্ভব। 

৪. পেইড রিভিউ লিখে আয় – Writing Paid Review

আপনার ব্লগটি যদি টেকনোলজি বিষয়ক হয়ে থাকে তাহলে আপনি ব্লগে পেইড রিভিউ লিখে আয় করতে পারবেন। তবে এই পদ্ধতিতে আপনাকে আয় করতে হলে আপনার ব্লগের প্রচুর পরিমাণে অর্গানিক ভিজিটর থাকা লাগবে। অর্থাৎ আপনার ব্লগটি খুবই জনপ্রিয় হতে হবে। 

আপনার ব্লগের যখন প্রচুর পরিমাণে ভিজিটর থাকবে এবং আপনার ব্লগ দিয়ে যখন জনপ্রিয় হবে তখন অনেক ই-কমার্স ওয়েবসাইট আপনার সাথে যোগাযোগ করবে এবং তাদের প্রোডাক্ট সম্পর্কে আপনার ব্লগে লিখতে বলবে। আপনি এর জন্যে তাদের কাছে নির্দিষ্ট অর্থ চাইবেন। 

আর এটি হচ্ছে মূলত পেইড রিভিউ।বর্তমানে অসংখ্য ব্লগার এই পদ্ধতিতে ব্লগ থেকে ভালো অর্থ উপার্জন করে থাকেন। 

৫. ব্লগে লোকাল বিজ্ঞাপন থেকে আয় – Local Advertisement

আপনার ব্লগ টি যদি খুব বেশি জনপ্রিয় হয়ে থাকে তাহলে আপনার ব্লগের লোকাল বিজ্ঞাপন লাগিয়ে সেখান থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

এর জন্য আপনাকে কোন কোম্পানির সাথে সরাসরি কথা বলে সেই কোম্পানির বিজ্ঞাপন আপনার ব্লগে লাগাতে হবে এবং তাদের থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ নিতে হবে। 

এই পদ্ধতিতে আপনি অনেক বেশি টাকা আয় করতে পারেন যদি আপনার ব্লগ টি খুবই জনপ্রিয় হয় এবং আপনার ব্লগে প্রচুর পরিমাণে ভিজিটর থাকে।অনেকে তাদের ব্লগ লোকাল বিজ্ঞাপনের এড বসিয়ে প্রতিমাসে ভালো টাকা আয় করে থাকেন। 

৬. ব্লগের মাধ্যমে কোর্স বিক্রি করে আয় – Sell Online courses

নির্দিষ্ট কোন বিষয়ে যদি আপনি দক্ষ হয়ে থাকেন তাহলে সেই বিষয় সম্পর্কিত কোর্স বিক্রি করে আপনি ব্লগ থেকে আয় করতে পারেন। ধরুন আপনি এসইও সম্পর্কে খুবই ভাল জানেন। তাহলে আপনি এসইও বিষয়ে একটি কোর্স তৈরি করে আপনার ব্লগে সেই কোর্সের বিষয়ে বলতে পারেন।

আপনার ব্লগে আসা কিছু ভিজিটর যদি সেই কোর্সের বিষয়ে আগ্রহী হয়ে থাকে এবং সেই কোর্সটির যদি তারা কিনে তাহলে এর মাধ্যমে আপনি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

এভাবে যত বেশি সংখ্যক লোক আপনার ব্লগ থেকে সরাসরি কোর্সটি কিনবে আপনার আয়ও কিন্তু ঠিক ততটাই বেশি বৃদ্ধি পাবে। তাই ব্লগ থেকে যদি আয় করতে চান তাহলে এই পদ্ধতিটি অবলম্বন করে আয় করতে পারেন।

৭. গেস্ট ব্লগিং থেকে আয় – Earn by Guest Blogging 

যারা নতুন ব্লগার রয়েছেন তারা তাদের ব্লগের ব্যাকলিংক এবং সাইটের অথরিটি বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন জনপ্রিয় ওয়েবসাইট গুলোতে গেস্ট ব্লগিং করে থাকে। অর্থাৎ তারা এসব সাইট গুলোতে একটি করে আর্টিকেল লিখবে এবং সেখান থেকে তারা একটি লিংক দিবে।

আপনার ব্লগ থেকে পাওয়া একটি লিংক তাদের ব্লগের অথরিটি বৃদ্ধি করবে। তাই আপনার ব্লগ টি যদি খুবই জনপ্রিয় হয় এবং আপনার ব্লগের অথরিটির যদি খুবই ভালো হয়ে থাকে তাহলে এর জন্য আপনি তাদের কাছ থেকে অর্থ নিতে পারবেন। তাই যদি কেউ ব্লগ থেকে আয় করবেন বলে ভেবে থাকেন তাহলে গেস্ট ব্লগিংয়ের মাধ্যমে ব্লগ থেকে আয় করতে পারেন।

ব্লগ কিভাবে তৈরি করে – How to Create a Blog in Bengali

বিভিন্ন উপায়ে ব্লগ তৈরি করা যায়। তবে ব্লগ তৈরি করার সবচেয়ে সহজ এবং জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে ওয়ার্ডপ্রেস। এটি একটি কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করে ফেলা যায় মূহুর্তেই মধ্যেই।

মূলত, একটি ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করতে কয়েকটি জিনিসের প্রয়োজন হয়। উপকরণগুলো নিন্মরূপঃ

  1. ডোমেইন নাম
  2. হোস্টিং সার্ভার
  3. কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (CMS)
  4. ওয়েব টেমপ্লেট (Theme)

ডোমেইন নামঃ আপনার ব্লগের জন্য প্রথমেই একটি ডোমেইন নাম সিলেক্ট করতে হবে। আগে কখনোই কেউ ব্যবহার করেনি আপনি এমন নাম সিলেক্ট করতে পারবেন। ওয়েবসাইটের জন্য সুন্দর নাম খুঁজে পাওয়ার পদ্ধতি দেখে নিন।

হোস্টিং সার্ভারঃ আপনার ব্লগটি যেন অনলাইনে সবাই এক্সেস করতে এবং পড়তে পারে সেজন্য হোস্টিং সার্ভার কিনতে হবে। বিভিন্ন হোস্টিং প্রোভাইডার থেকে আপনি এই সেবাটি নিতে পারবেন।

কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমঃ আপনার ওয়েবসাইটের কন্টেন্টগুলো সুন্দরভাবে ম্যানেজ করার জন্য একটি সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে, যাকে কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম বলে। এটি ফ্রিতে ইন্সটল করতে হয়। ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করার নিয়ম দেখে নিন।

ওয়েব টেমপ্লেটঃ ওয়েবসাইটকে উন্নতমানের কাঠামো বা ডিজাইন প্রদানের জন্য ওয়েব টেম্পলেট বা থিম ব্যবহার করা হয়। অনলাইনে ফ্রি এবং পেইড উভয় ধরনের থিম রয়েছে।

ব্লগ তৈরি করতে নিচের এগুলো অবশ্যই পড়ুনঃ

Check it also:

ব্লগ লেখার নিয়ম – How to Write Blog Post

ব্লগ লেখার নিয়ম অত্যন্ত সহজ। যে কেউ চাইলেই ব্লগ লিখে টাকা আয় করতে পারে। ব্লগ লিখার জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন হচ্ছে টপিক সিলেকশন বা কিওয়ার্ড রিসার্চ

অর্থাৎ, আপনি কি বিষয় নিয়ে ব্লগ লিখবেন তা আগে ঠিক করতে হবে। এবং অবশ্যই যে জিনিসের ভালো চাহিদা আছে সে জিনিস নিয়ে ব্লগ লিখা উচিত। এসইও কোর্স করলে এই সম্পর্কে আপনি ভালো ধারনা পাবেন।

তারপর সে টপিকে উপর ভালো করে আর্টিকাল লিখতে হবে। এক্ষেত্রে যত বেশি তথ্য যুক্ত করা যায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আর্টিকাল শুধু বড় লিখলেই হবে না এটিকে বিভিন্ন Image, Headings ইত্যাদি দিয়ে সাজাতে হবে।

আর ব্লগিং করে আয় করতে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে ধারাবাহিকতাকে। অর্থাৎ, আপনাকে ধারাবাহিকভাবে কাজ করে যেতে হবে; ব্লগ পাবলিশ করে যেতে হবে।

বাংলা ব্লগ সাইট থেকে ইনকাম কেমন হয়?

বাংলা ব্লগ সাইট এর চেয়ে ইংরেজী ব্লগ সাইটে ইনকাম বেশি। কারন, ইংরেজী ভাষায় ব্লগিং করলে বেশিরভাগ ভিজিটর ইউরোপীয় দেশগুলো থেকে আসে। তাছাড়া, কিওয়ার্ডের সিপিসি অনেক বেশি থাকে। যার ফলে, ইংরেজী সাইটে বাংলা ব্লগ সাইট থেকে ইনকাম এর কয়েকগুন বেশি হয়।

কিন্তু এদেশে বাংলা ভাষায় ব্লগিং করেও অনেক ব্লগার মাসে ১ লক্ষ টাকার অধিক ইনকাম করে।

কিন্তু বাংলা ব্লগ থেকে এরকম ইনকাম করতে হলে ২-৩ বছর প্ররিশ্রম করতে হবে। তাহলে আপনি বাংলা ব্লগ তৈরি করে আয় করতে পারবেন।

আমাদের শেষ কথা 

বর্তমান সময়ে ব্লগিং অনেক জনপ্রিয় একটি প্লাটফর্মে পরিণত হয়েছে। ব্লগিং সেক্টরে খুব অল্প সময়ের মধ্যেই সফলতা পাওয়া যায়। এখন এমন অনেক ব্লগার রয়েছে যারা ব্লগিং কে প্যাসিভ ইনকাম এর উৎস হিসেবে নিচ্ছেন।তাই আপনার যদি একটি ব্লগ থেকে থাকে এবং ব্লগ তৈরি করে আয় করতে চান তাহলে উপরের পদ্ধতিগুলোর অবলম্বন করে ব্লগ থেকে প্রতিমাসে আপনারা ভালো অর্থ উপার্জন করতে পারেন। 

আর ব্লগিং সম্পর্কিত যদি কোন ধরনের প্রশ্ন থাকে আমাদেরকে সরাসরি কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। পোস্টটি পড়ে যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ। 

Leave a Reply

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: