কিভাবে মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করা যায়

মোবাইল নাম্বার দিয়ে একটি মোবাইলের লোকেশন ট্র্যাক করা সম্ভব। সিম কম্পানি কিংবা টেলিফোন অপারেটর চাইলেই যেকোনো মূহুর্তে একটি মোবাইল নাম্বার সার্চ করে সে মোবাইলে লোকেশন বের করতে পারে। কিন্তু, সাধারন মানুষের পক্ষে একদম নির্ভুলভাবে নাম্বার ট্র্যাক করা সম্ভব নয়। আসলেও কি ফোন নাম্বার দিয়ে লোকেশন ট্র্যাক করা সম্ভব? যদি সম্ভব হয় তাহলে কিভাবে মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করা যায় চলুন দেখে নেওয়া যাক। How to track location with mobile number?

একজন সাধারন মানুষ নিজে নিজে চেষ্ঠা করে মোবাইল নাম্বার দিয়ে নাম্বারটা কোথায় আছে তার সঠিক লোকেশন বের করতে পারবে না। কিন্তু পুলিশ বা আইনের লোক নিমিষেই বের করতে পারবে।

একজন সাধারন মানুষ যেটি করতে পারে সেটি হলো নাম্বারটা কে ব্যবহার করছে তার পরিচয় জানতে পারবেন।

অনলাইনে আপনারা অনেক সময় বিভিন্ন আর্টিকাল দেখে থাকবেন, যেমনঃ

  • মোবাইল নাম্বারের লোকেশন বের করুন
  • লোকেশন ট্র্যাক উইথ ফোন নম্বর
  • নাম্বার দিয়ে লাইভ লোকেশন ট্র্যাকিং করুন
  • মাত্র ২ মিনিটে যেকোনো লোকের লোকেশন বের করুন নাম্বার দিয়ে ১০০% গ্যারান্টি,  ইত্যাদি।

কিন্তু বিশ্বাস করুন, এগুলো একটি আর্টিকাল পড়েও আপনি উপকৃত হবেন না। কারন, আইনের সহায়তা না নিয়ে আপনি নিজে নিজে মোবাইল নাম্বার দিয়ে কখনোই নাম্বারটা কোথায় আছে তার একদম সঠিক লোকেশন বের করতে পারবেন না। বরং, আপনি মোবাইল নাম্বার ব্যবহারকারীর নাম এবং ঠিকানা জানতে পারবেন।

তবে, মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন ট্র্যাক করার কিছু উপায় রয়েছে। আপনি চাইলে Parental Controls, অথবা Google Maps ব্যবহার করে একটি মোবাইলের লোকেশন বের করতে পারবেন। তবে এটি শুধুমাত্র আপনার নিজের, আপনার ছেলেমেয়ে, কিংবা আপনার পরিচিত কারো মোবাইল লোকেশন ট্র্যাক করার কাজে ব্যবহার করতে পারবেন। কারন, Parental Controls, বা Google Maps দিয়ে লোকেশন ট্র্যাক করার জন্য মোবাইল আগে থেকে সেট আপ করে রাখতে হয়।

Parental Controls হলো এমন একটি system যেটি ব্যবহার করে সকল মা-বাবা তাদের বাচ্চারা মোবাইল নিয়ে কি করছে, কোথায় যাচ্ছে, কতক্ষন সময় ধরে মোবাইল ব্যবহার করছে ইত্যাদি সকল এক্টিভিটি ট্র্যাক করতে পারে।

মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন ট্র্যাক করা সম্ভব কি?

হ্যা, অবশ্যই মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন ট্র্যাক করা সম্ভব। পুলিশ বা আইনের লোক যেকোনো সময় একটি মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করতে পারে।

আপনার মোবাইল যদি চুরি হয়ে যায় কিংবা অজানা নাম্বার থেকে বারবার কল দিয়ে আপনাকে বিরক্ত করছে এমন হয় তাহলে ঐ চুর কিংবা অজানা নাম্বারের লোকেশন ট্র্যাক করার জন্য আপনাকে অবশ্যই আইনের সহায়তা নিতে হবে অর্থাৎ থানায় জিডি করতে হবে।

আপনি নিজে নিজে মোবাইল নাম্বার দিয়ে লাইভ লোকেশন ট্র্যাকিং করতে পারবেন তবে সেজন্য মোবাইলটি আপনার মোবাইলের সাথে যেকোনো উপায়ে connected থাকতে হবে। সেটি হতে পারে গুগল একাউন্ট এর মাধ্যমে কিংবা Parental Controls এর মাধ্যমে।

তাছাড়াও, অনলাইনে কিছু Third-party apps পেয়ে যাবেন যেগুলো ব্যবহার করে নাম্বার দিয়ে সরাসরি লোকেশন ট্র্যাকিং করতে না পারলেও মোবাইল নাম্বার দিয়ে পরিচয় বের করা যাবে।

তাহলে আমরা জানলাম, নাম্বার দিয়ে লোকেশন ট্র্যাকিং করা সম্ভব। আইনের সহায়তা নিয়ে, Google Find my device, Parental Controls এবং অনলাইনে কিছু Third-party apps এর মাধ্যমে আমরা মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করতে পারি।

কিভাবে মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন ট্র্যাক করা যায়

কয়েকটি উপায়ে ফোন নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করা যায় যা আমরা উপরে জানতে পেরেছি। এখন কিভাবে মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করা যায় সে সম্পর্কে জানবো।

সাধারনত ৪ টি উপায়ে আপনি মোবাইল নাম্বার দিয়ে একটি জায়গার অবস্থান জানতে পারবেন। যথাঃ

  1. আইনের সাহায্য নিয়ে
  2. গুগল ম্যাপের মাধ্যমে
  3. Parental Controls এর মাধ্যমে
  4. Third-Party apps বা Tools এর মাধ্যমে

1. আইনের সাহায্য নিয়ে কিভাবে লোকেশন ট্র্যাক করবো

নিকটস্থ থানায় জিডি করার মাধ্যমে আপনি আইনের সহায়তা নিয়ে মোবাইল লোকেশন ট্র্যাক করতে পারবেন। অর্থাৎ, আপনার মোবাইল যদি হারিয়ে যায় কিংবা চুরি হয়ে যায় তাহলে আপনি প্রথমে নিকটস্থ একটি থানায় যাবেন এবং আপনার মোবাইলের নাম্বার, মডেল নাম্বার, IMEI নাম্বার, ইত্যাদি উল্লেখ করে একটি জিডি করবেন।

জিডিতে অন্তর্ভুক্ত করা মোবাইল যদি চালু অবস্থায় থাকে তাহলে পুলিশ মোবাইল অপারেটরের সাহায্য নিয়ে সরাসরি মোবাইল লোকেশন ট্র্যাক করে আপনার মোবাইল উদ্ধার করবে। আর, যদি মোবাইলটি বন্ধ অবস্থায় থাকে তাহলে তাহলে আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে যতক্ষন না পর্যন্ত মোবাইলটি চালু করা হয়।

আপনার মোবাইল যদি হারিয়ে যায়, কিংবা চুরি হয়ে যায়, কিংবা কেউ যদি আপনাকে মোবাইলে কল দিয়ে বিরক্ত করে বা হুমকি দেয় তাহলে দ্রুত থানায় জিডি করতে ফেলতে হবে।

অবশ্যই পড়ুনঃ হারানো মোবাইল খুজে পেতে কিভাবে জিডি করবেন

2. গুগল ম্যাপে মোবাইল লোকেশন বের করার উপায়

গুগল ম্যাপ দিয়ে আপনি যেকোনো মোবাইলের লোকেশন ট্র্যাক করতে পারবেন। you can trace mobile number exact location on map. কিন্তু মোবাইলটি ইন্টারনেটের সাথে সংযুক্ত থাকতে হবে, তবেই কেবল আপনি গুগল ম্যাপে মোবাইল লোকেশন লাইভ ট্র্যাকিং করতে পারবেন।

এখন আসি কিভাবে গুগল ম্যাপ ব্যাবহার করে আপনার পরিচিত কারো লোকেশন ট্র্যাক করবেন।

 Google Maps-এ নাম্বার দিয়ে লোকেশন ট্র্যাক করব কিভাবে? 

নিচের স্টেপগুলো ফলো করুনঃ

step-1: আপনি যে মোবাইলটি লাইভ ট্র্যাকিং করতে চাচ্ছে সে মোবাইল দিয়ে প্রথমে Google Maps অ্যাপ-এ প্রবেশ করতে হবে।

step-2: উপরে ডানপাশের কোণায় আপনার গুগল একাউন্ট দেখতে পাবেন, সেখানে ক্লিক করলে অনেকগুলো অপশন আসবে।

step-3: অনেকগুলো অপশন থেকে আপনাকে “Location Sharing” নামক অপশনটি বাছাই করে নিতে হবে। এবং Share Location বাটনে ক্লিক করতে হবে।

step-4: এর পরের ধাপে আপনাকে ২ টি কাজ করতে হবে।

  1. Share your real-time location অপশনটিকে আপনি Until your turn this off সেট করে দিবেন। তাহলে যতক্ষন না পর্যন্ত আপনি এটি বন্ধ করবেন ততক্ষন এটি চলমান থাকবে।
  2. আপনার লোকেশন যেকোনো একটি মাধ্যমে শেয়ার করে দিতে হবে। আপনি চাইলে মোবাইল নাম্বার, ইমেইল, মেসেঞ্জার, টেলিগ্রাম, হোয়াটসএপ, ইত্যাদি মাধ্যমে শেয়ার করতে পারেন।

আপনি যদি মোবাইল নাম্বারে লোকেশন শেয়ার করতে চান তাহলে ডানদিকে স্ক্রল করলে More Option দেখতে পারবেন। সেখানে ক্লিক করে উপরের বক্সে আপনার নিজের Mobile Number দিয়ে দিবেন। তাহলে আপনার মোবাইলে একটি Live Location Link চলে যাবে। এই লিংক-এ ক্লিক করে আপনি যেকোনো সময় মোবাইলটা বা নাম্বারটা কোথায় আছে লাইভ দেখতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

3. Parental Control এর মাধ্যমে Location Tracking

Parental Control এর মাধ্যমে যেকোনো মোবাইল ফোন নাম্বার দিয়ে একটি লোকেশন ট্র্যাকিং করার জন্য আপনি একটি অ্যাপ্লিকেশান ব্যবহার করতে পারেন সেটি হলো FamiSafe. এটি একটি best parental control app for android.

FamiSafe App এর মাধ্যমে কি কি করা যায়?

FamiSafe অ্যাপটির মাধ্যমে শুধু মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করা না, পাশাপাশি মোবাইলের যাবতীয় সকল কিছু কন্ট্রোল করতে পারবেন। যেমন,

  • মোবাইলটি এখন কোথায় রয়েছে
  • মোবাইলটিতে কোন কোন অ্যাপ্লিকেশান ব্যবহার করা হচ্ছে
  • কতক্ষন ব্যবহার করা হয়।

এককথায় ফোনটির মাধ্যমে যা যা করা হয় সবকিছু মনিটরিং করতে পারবেন। তাছাড়া, মোবাইলের আরো বিভিন্ন ফিচার ব্যবহার করা যায়। যেমন আপনি এখানে একটি টাইম সেট করে দিতে পারবেন যে টাইমের পর মোবাইল লক হয়ে যাবে। তাছাড়া মোবাইলের বিভিন্ন অ্যাপ আপনি অন্য মোবাইল দিয়ে লক করে দিতে পারবেন।

কিভাবে FamiSafe ব্যবহার করতে হয়?

প্রথমেই বলে রাখি, FamiSafe এপটি আপনি ফ্রি ব্যবহার করতে পারবেন না। Free Trail for 3 days অর্থাৎ কেবল ৩ দিনের জন্য ফ্রি ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন। FamiSafe ব্যবহার করার জন্য আপনাকে দুটি মোবাইলে দুটি অ্যাপ ইন্সটল করতে হবে। মনে করুন, আপনি হচ্ছে একজন বাবা এবং আপনি আপনার বাচ্চার মোবাইল কন্ট্রোল করতে চাচ্ছেন। তাহলে-

তারপর, বাচ্চার মোবাইলের সাথে বাবার মোবাইল QR code এর মাধ্যমে সংযুক্ত করে নিতে হবে। তারপর বাচ্চার মোবাইলের সবকিছু বাবার মোবাইল দিয়ে কন্ট্রোল করা যাবে। বাচ্চার মোবাইলের লোকেশন ট্র্যাক করার জন্য এই অ্যাপ্লিকেশানটি খুবই কার্যকরী। বাচ্চা কোথায় কোথায় যাচ্ছে, মোবাইল দিয়ে কি করছে সবকিছু আপনি এভাবে এই অ্যাপ দিয়ে বের করতে পারবেন।

4. Third-Party apps দিয়ে কিভাবে মোবাইল লোকেশন বের করব

আপনি mobile number tracker with current location online লিখে সার্চ করলে অবশ্যই অনলাইনে অনেক টুলস বা Third-Party apps পেয়ে যাবেন যেগুলো ব্যবহার করে খুব সহজেই মোবাইল নম্বর লোকেশন ট্র্যাক করা যাবে।

মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন জানার Third-Party apps

অনেক থার্ড-পার্টি এপস রয়েছে যেগুলো ব্যবহার করে আপনি মোবাইল নাম্বার ইনপুট দিয়ে তার ছবি, নাম ও ঠিকানা ইত্যাদি বের করে ফেলতে পারবেন।

এই এপসগুলোর মধ্যে বাংলাদেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্রি এন্ড্রয়েড নাম্বার লোকেশন app হচ্ছে TrueCaller.

তাছাড়া পেইড ভার্সন অ্যাপের মধ্যে রয়েছে spyic এবং আইফোন বা Apple ডিভাইস ব্যবহারকারীদের জন্য রয়েছে CallerSmart.

Must Read: মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করার এপস।

Third-Party apps এর মাধ্যমে মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করার নিয়ম

উপরে উল্লিখিত Third-Party apps দিয়ে আপনি মোবাইল নাম্বার দিয়ে সে মোবাইল ব্যবহারকারীর প্রাথমিক ধারনা নিতে পারবেন। অর্থাৎ, ব্যবহারকারীর নাম, ঠিকানা, ইত্যাদি পরিচয়।

এই Third-Party apps লোকেশন ট্র্যাক করে কিভাবে?

এর জন্য একটি অ্যাপ আপনার মোবাইলে ইন্সটল করে নিতে হবে। ইন্সটল করার সাথে সাথে আপনার মোবাইলের কল লিস্ট দেখতে পারবেন। আপনার মোবাইলে সেভ করার নাম্বারগুলোর নাম দেখতে পাবেন এবং পাশাপাশি যে নাম্বারগুলো সেভ করা ছিল না অর্থাৎ Unknown নাম্বারের নাম দেখাবে।

হ্যা, আশ্চর্য হওয়ার কিছুই নেই। অ্যাপগুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি Unknown Number এর নাম দেখতে পারবেন এবং কোনো ক্ষেত্রে Unknown Number এর ঠিকানা এবং ছবি দেখাবে।

আপনি চাইলে উপরের সার্চ বার থেকে একটি Unknown Number সার্চ করেও তার নাম এবং লোকেশন দেখতে পারবেন। সেসাথে লোকটি প্রতারক কিংবা স্প্যামার কিনা তাও দেখতে পারবেন।

আর এসব এপগুলোতে পেইড সাবস্ক্রিপশন করার মাধ্যমে আপনি একটি মোবাইল নাম্বার সার্চ করে সে নাম্বারটা কোথায় আছে তার লাইভ লোকেশন ট্র্যাক করতে পারবেন।

আমাদের শেষ কথা

এতক্ষনে নিশ্চয় ফোন নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করার নিয়ম আপনি জেনে গেছেন। এখন আপনি ইচ্ছে করলেই যেকোনো লোকেশন ম্যাপ লাইভ মোবাইল নম্বর দিয়ে বের করতে সক্ষম হবেন। এরপরও যদি মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করার উপায় নিয়ে কোনো ঝামেলা থাকে তাহলে নিচে কমেন্ট করে আমাদেরকে জানাবেন। আমরা অবশ্যই আপনার সমস্যা সমাধানে সহযোগীতা করবো। আর অবশ্যই আমাদের পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করে দিবেন।

এতক্ষন আপনারা পড়ছিলেন কিভাবে মোবাইল নাম্বার দিয়ে লোকেশন বের করা যায় সেটি।

আরো পড়ুনঃ

Avatar of Shakib Hasan

Blogger and SEO Expert. Founder of Techbdtricks. I always try to explore something new and let the people know about that. Keep me in your prayers.

Leave a Comment