IMEI নাম্বার দিয়ে মোবাইল লোকেশন বের করার উপায়

IMEI যার পূর্নরূপ হচ্ছে International Mobile Equipment Identity. প্রতিটি মোবাইলের একটি আলাদা Identity Number থাকে। এই নাম্বার দিয়ে প্রত্যেক মোবাইলকে আলাদা করে শনাক্ত করা যায়। আজকে আমরা দেখব IMEI নাম্বার দিয়ে মোবাইল লোকেশন ট্র্যাক করা যায় কিনা সে সম্পর্কে।

যদি IMEI NUMBER দিয়ে লোকেশন বের করা যায়, তাহলে কিভাবে বের করতে হয়? how to track my phone imei number?

IMEI(আইএমইআই) নাম্বার ব্যবহার করে মোবাইল লোকেশন বের করা যায়, কিন্তু কোনো সাধারন মানুষ তা করতে পারে না। তবে, আইন-প্রশাসনের লোক বা পুলিশ IMEI নাম্বার দিয়ে মোবাইল লোকেশন ট্র্যাক করতে পারে।

মোবাইলের আইএমইআই নাম্বার অপরিবর্তনশীল। অর্থাৎ, মোবাইল থেকে সিম খুলে নিলে কিংবা সবকিছু ডিলিট করে দিলেও এই নাম্বার পরিবর্তন হয় না।

তাই, কোনো মোবাইল চুর যদি মোবাইল চুরি করে নিয়ে সিম পরিবর্তন করে ফেলে, তবুও পুলিশ সে চুরকে ধরার ক্ষমতা রাখে।

তো কি এই imei number, কিভাবে কাজ করে, এর মাধ্যমে কি কি করা যায়, চলুন বিস্তারিত দেখে নেওয়া যাক-

imei নাম্বার দিয়ে কি কি করা যায়

imei দিয়ে হারানো মোবাইল এর লোকেশন ট্র্যাক করা যায়। শুধু তাই নয়, মোবাইলের যাবতীয় সকল information এর মাধ্যমে জানা যায়। যেমনঃ

  • মোবাইল কম্পানির নাম
  • মোবাইলের মডেল নাম্বার
  • মোবাইলে কোন সিম ব্যবহার করছেন
  • সিমটি কোন নেটওয়ার্কের সাথে সংযুক্ত আছে
  • কল লিস্ট

এছাড়াও ইত্যাদি আরো অনেক তথ্য এই imei দিয়ে জানা যায়। আর, imei number এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে এর মাধ্যমে সিম ছাড়া ফোন ট্র্যাক করা যায়। অর্থাৎ, আপনার ফোনে যে সিম ছিল তা পরিবর্তন করে ফেললেও imei number পরিবর্তন হবে না।

ফলে, পুলিশ সহজেই imei দিয়ে হারানো মোবাইল ট্র্যাক করতে পারে এবং মোবাইল চোর ধরতে পারে। এমনকি পুলিশ ওয়েবসাইটের মাধ্যমে হারিয়ে যাওয়া ফোন সম্পূর্ণ ব্লক করে দিতে পারে।

মনে রাখবেন, শুধু পুলিশ কিংবা আইনের লোক imei দিয়ে উপরে উল্লিখিত সবকিছু করতে পারে, যা কোনো সাধারন মানুষ পারে না।

কিভাবে imei দিয়ে হারানো মোবাইল ট্র্যাক করা যায়?

imei দিয়ে হারানো মোবাইল খুজে বের করা যায় ঠিকই। কিন্তু, আপনি নিজে নিজে তা বের করতে পারবেন না। এর জন্য আপনাকে আইনের সহায়তা নিতে হবে।

সাধারন মানুষকে আইএমইআই ব্যবহারের সুযোগ দেওয়া হয় না, তাই Imei নাম্বার দিয়ে হারানো মোবাইলের লোকেশন বের করতে হলে আইনের সাহায্য নিতে হয়।

আপনার মোবাইল যদি হারিয়ে যায়, তাহলে জিডি করার মাধ্যমে তা খুজে পেতে পারেন। এর জন্য পুলিশ আপনাকে সাহায্য করবে।

আপনি আপনার নিকটস্থ থানায় গিয়ে বিস্তারিত উল্লেখ করে একটি জিডি করবেন। তারপর পুলিশ Imei নাম্বার ব্যবহার করে আপনার Mobile Location Track করবে। এবং আপনার মোবাইলটি উদ্ধার করে আপনাকে ফিরিয়ে দিবে।

আরো পড়ুনঃ

আরেকটি কথা মনে রাখবেন, মোবাইল বন্ধ থাকা অবস্থাইয় কোনোভাবেই তার লোকেশন ট্র্যাক করা সম্ভব নয়। তাই, জিডি করার পর মোবাইল ফিরে পেতে কিছুটা দেরীও হতে পারে।

আর, অবশ্যই মোবাইল লোকেশন ট্র্যাক করার জন্য IMEI নাম্বার জানা প্রয়োজন হবে। আপনি হয়তো ভাবছেন, আমি মোবাইল হারিয়ে ফেলেছি IMEI নাম্বার কিভাবে জানব!

IMEI নাম্বার দেখবেন কিভাবে? How to check IMEI

আইএমইআই নাম্বার দেখার বা চেক করার বিভিন্ন পদ্ধতি আছে। পদ্ধতিগুলো হলোঃ

  • মোবাইল কোড ডায়াল করে
  • মোবাইলে বক্স থেকে imei
  • imei অনলাইন চেক

আপনার মোবাইলটি যদি হাতের মধ্যে থাকে তাহলে আপনি মোবাইল কোড ডায়াল করে ১৫ ডিজিটের IMEI নাম্বার দেখে নিতে পারবেন। কিন্তু আপনার মোবাইল যদি হারিয়ে যায় কিংবা চুরি হয়ে যায় এবং তখন যদি IMEI নাম্বার জানার প্রয়োজন হয় তাহলে আপনি মোবাইল কোড ডায়াল করে IMEI দেখতে পারবেন না।

এক্ষেত্রে মোবাইল imei চেক করার জনহ্য আপনাকে অন্য পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। অর্থাৎ মোবাইলের বক্স থেকে IMEI নাম্বার দেখে নিতে হবে। যদি তাও সম্ভব না হয় তাহলে অনলাইন থেকে দেখে নিতে হবে।

মোবাইল কোড ডায়াল করে imei দেখার নিয়ম

আপনার মোবাইলটি যদি আপনার কাছে থাকে তাহলে মোবাইল কোড ব্যবহার করে IMEI নাম্বার দেখতে পারবেন। সে জন্য প্রথমে মোবাইলের ডায়াল অপশনে যেতে হবে।

ডায়াল অপশন থেকে *#06# ডায়াল করুন।

সাথে সাথে আপনার সামনে আপনার মোবাইলের IMEI নাম্বার প্রদর্শিত হবে। তারপর তা আপনার ডাইরীতে লিখে রাখতে পারেন।

মোবাইল বক্স থেকে imei দেখার নিয়ম

প্রত্যেকটি মোবাইলের বক্সে সে মোবাইলের imei নাম্বার দেওয়া থাকে। আপনি যদি কোনো মোবাইল হারিয়ে ফেলেন এবং তারপর তা ফিয়ে পেতে চান তাহলে অবশ্যই imei নাম্বার দেখার প্রয়োজন হবে।

তখন মোবাইল USSD code ডায়াল করে imei নাম্বার দেখতে পারবেন না। কারন আপনার মোবাইল তো হারিয়েই গেছে, তাহলে সেখানে কোড কিভাবে ডায়াল করবেন!

সেক্ষেত্রে হারানোর মোবাইলের বক্স যদি আপনার বাসায় থাকে তাহলে সে বক্স থেকে imei নাম্বার দেখে নিয়ে থানায় জিডি করতে পারবেন। তারপর পুলিশ সেই IMEI নাম্বার দিয়ে মোবাইল লোকেশন ট্র্যাক করে মোবাইলটি বের করে ফেলবে।

অনলাইন থেকে আইএমইআই দেখার নিয়ম – imei check online

এখন ধরুন আপনি একটি মোবাইল হারিয়ে ফেলেছেন এবং আপনার কাছে ঐ মোবাইলের বক্সটিও নেই। তাহলে কিভাবে মোবাইলের IMEI নাম্বার জানবো?

চিন্তা করবেন না, যদি আপনার মোবাইলটি একটি এন্ড্রয়েড ফোন হয় তাহলে অনলাইন থেকে সে মোবাইলের IMEI নাম্বার পেয়ে যেতে পারেন।

এর জন্য দরকার হবে গুগলের Find My Device ফিচার।

এর জন্য যা যা করতে হবেঃ

  1. আপনি আপনার মোবাইলে Find My Device app download from Google play store করতে পারেন।
  2. গুগল একাউন্ট লগিন করুন।
  3. তারপর আপনার গুগল একাউন্ট এর সাথে যুক্ত থাকা সকল মোবাইল প্রদর্শন করবে।
  4. আপনি যে মোবাইলের imei check online করতে চান সেটি সিলেক্ট করুন।
  5. মোবাইল আইকনের ডানপাশে থাকা আই বাটনে ক্লিক করুন।
  6. এখন আপনার IMEI নাম্বার দেখে নিন।

পুলিশ কিভাবে IMEI নাম্বার দিয়ে মোবাইল লোকেশন ট্র্যাক করে?

আমরা সকলেই জানি পুলিশ IMEI নাম্বার দিয়ে মোবাইল লোকেশন ট্র্যাক করে থাকে। কিন্তু কিভাবে পুলিশ এ কাজটি করে? আরে কেন পুলিশ ছাড়া অন্য কেউ IMEI দিয়ে মোবাইল ট্র্যাকিং করতে পারে না? চলুন বিষটি জেনে নিই-

আমাদের প্রত্যেকের মোবাইলেই একটি ১৫ ডিজিটের IMEI নাম্বার থাকে। আর যখন কোনো মোবাইলে সিম ডুকানো হয় তখন IMEI নাম্বারের সাথে সিমের নাম্বার যুক্ত হয়ে নতুন একটি কোড তৈরি হয় যা নেটওয়ার্ক প্রোভাইডার (Network Provider) এর ডাটাবেজে সংরক্ষিত থাকে।

তাই, যখন কোনো মোবাইল ট্র্যাকিং করার প্রয়োজন পরে পুলিশ সরাসরি নেটওয়ার্ক প্রোভাইডারের সাথে যোগাযোগ করে। আর, অপরাধী যখন মোবাইলটি চালু করে তখন ঐ আইএমইআই এর সাথে কানেক্টেড থাকা সিমের নাম্বার দেখা যায়।

আর আমরা জানি প্রতিটি সিম কোনো ব্যাক্তির নামে রেজিস্ট্রেশন করা থাকে। এভাবেই পুলিশ imei কোড দিয়ে মোবাইল নাম্বার চেক করে। এবং সে মোবাইল নাম্বার যার নামে রেজিস্ট্রেশন সে ঠিকানায় গিয়ে অপরাধীকে ধরতে সক্ষম হয়।

শেষ কথা

আমরা জানলাম IMEI নাম্বার দিয়ে মোবাইল লোকেশন ট্র্যাক করা যায়। কিন্তু এটি সম্পূর্নভাবে আইনের হাতে। পুলিশ ছাড়া অন্য কোনো সাধারন মানুষ IMEI দিয়ে হারানো মোবাইল খুজে বের করতে পারে না।

তাই, আমাদের মোবাইল যদি হারিয়ে যায়, আমরা যদি হারানো মোবাইল ফিরে পেতে চাই তাহলে পুলিশের শরণাপন্ন হতে হবে। থানায় আমাদের একটি জিডি করতে হবে।

আর অবশ্যই জিডি করার জন্য IMEI নাম্বারের প্রয়োজন হবে যা আমরা মোবাইলের বক্স থেকে কিংবা অনলাইন থেকে খুজে বের করতে পারবো।

মনযোগ সহকারে পুরো আর্টিকাল পড়ার জন্য ধন্যবাদ। যদি এসব কোনো বিষয়ে আরো কোনো জিজ্ঞাসা থাকে তাহলে নিচে কমেন্টে লিখুন। উত্তর দেওয়ার চেষ্ঠা করবো।

Avatar of Shakib Hasan

Blogger and SEO Expert. Founder of Techbdtricks. I always try to explore something new and let the people know about that. Keep me in your prayers.

7 thoughts on “IMEI নাম্বার দিয়ে মোবাইল লোকেশন বের করার উপায়”

  1. সিম নাম্বার দিয়ে আই মি নাম্বার বের করা যায় কিনা?

    Reply
    • সিম নাম্বার দিয়ে IMEI নাম্বার বের করা যায়। কিন্তু তা কেবলমাত্র সিম কম্পানি এবং আইনের লোকের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

      Reply
  2. আমি কি সিম লোকেশন কোথায় আছে কি করে জানতে পারি

    Reply
    • ব্লগটি ভালো করে পড়লে আশা করি বুঝতে পারবেন।

      Reply
  3. আমার একটি সিম সহ মোবাইল চুরি হয়েছে। আমাকে সাহায্য করুন।

    Reply
    • যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আপনি আপনার সিম কপারেটরের কাস্টমার কেয়ারে গিয়ে আপনার সিমটি নতুন করে পূনরূদ্ধার করুন। এবং থানাতে গিয়ে “মোবাইল হারিয়ে যাওয়ার কথা উল্লেখ করে” একটি জিডি করে রাখুন। কিভাবে হারানো মোবাইল খুজে পাওয়া যায় সেটি সম্পর্কে জানতে এটি পড়ুন – হারানো মোবাইল খুজে পাওয়ার উপায়

      Reply

Leave a Comment