অনলাইনে ছোট ছোট কাজ করে আয় করুন – Picoworkers

আপনি যদি অনলাইনে বেশি টাকা উপার্জন করতে চান তাহলে অনেক সময় এবং দৈর্যের প্রয়োজন। কিন্তু কম সময়ে টাকা উপার্জনের জন্য আপনাকে ছোট ছোট কাজ করতে হবে। আজকের এই আর্টিকালে একটি রিয়েল ইনকাম সাইট নিয়ে আলোচনা করবো যার মাধ্যমে অনলাইনে ছোট ছোট কাজ করে আয় করতে পারবেন।

এখানে ছোট ছোট কাজ করে দেওয়ার মাধ্যমে অনলাইনে টাকা আয় করা যায়। যেমনঃ ফেসবুকে লাইক দিয়ে ইনকাম, ইউটিউবে ভিডিও দেখে ইনকাম, জিমেইল একাউন্ট খুলে দেওয়া মাধ্যমে টাকা আয়, ইত্যাদি।

তো চলুন এখনই আলোচনা শুরু করি-

অনলাইনে ছোট ছোট কাজ করে কিভাবে ইনকাম করা যায়?

অনলাইনে এমন একটি মার্কেটপ্লেস রয়েছে যেখানে কাজ করতে কোনো প্রকার দক্ষতার প্রয়োজন হয় না। পূর্বের কোনো দক্ষতা ছাড়াই এখান থেকে ছোট ছোট কাজ করে চাইলে দৈনিক ৫ ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

এই ওয়েবসাইটের নাম সচারাচর সবাই শেয়ার করে না। আমি সেই রিয়েল ইনকাম সাইট-এর নামটি বলে দিচ্ছি। আর তার নাম হলো Picoworkers.

সাইটিতে প্রবেশের জন্য এখানে ক্লিক করুন

Picoworkers হচ্ছে এমন একটি ওয়েবসাইট যেখানে অনেক মানুষ বিভিন্ন ধরনের কাজ করে অনেক টাকা আয় করছে।

তাছাড়া যাদের ছোট ছোট কাজ প্রয়োজন হয় যেমন ফেসবুকে লাইক-ফলোয়ার বাড়ানো, ওয়েবসাইটে ভিজিটর আনা, ইউটুবে সাবস্ক্রাইব বা ভিউ বাড়ানো ইত্যাদি তাহলে তারা এই ওয়েবসাইট থেকে অল্প খরচেই কাজগুলো করিয়ে নিতে পারেন।

picoworkers-এ ছোট ছোট কাজ করে আয় করতে হলে কি কি জানতে হবে?

picoworkers-এ ছোট ছোট কাজ করে আয় করতে হলে বেশি কিছু জানতে হবে না। বরং, সাধারন কিছু কাজ যা সচারাচর সবাই পারে সেগুলো জানলেই আপনি অনলাইনে আয় করতে পারবেন।

তবুও যা যা জানোট হবে তা নিচে তুলে ধরলাম,

  1. কোনো কিছু কপি এন্ড পেস্ট করতে পারা।
  2. ফেসবুক/ইন্সটাগ্রাম/পোস্টে লাইক দিতে পারা।
  3. twitter একাউন্ট ফলো করতে পারা।
  4. you tube ভিডিও দেখতে পারা এবং ভিডিও শেয়ার করতে পারা।
  5. ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারা ।
  6. জিমেল একাউন্ট ক্রিয়েট করতে পারা।
  7. যেকোনো ওয়েবসাইটে একাউন্ট তৈরি করতে পারা।

মজার না ব্যাপার গুলো? সবাই এই কাজগুলোর সাথে পরিচিত এবং খুব সহজেই এইগুলো করা যায়।

আপনিও চাইলে এই সহজ কাজগুলো করে দৈনিক ৫ ডলার অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন তাও দৈনিক ৩-৪ ঘন্টা কাজ করে ।

দক্ষতা ছাড়া কাজ করবো নাকি দক্ষতা অর্জন করে কাজ করবো?

কিন্তু দক্ষতা ছাড়া ইনকামের রাস্তা দেখানোর আগে আমি আপনাদের একটি বিষয় বুজাতে চাই। ভালো করে বুঝুন।

মনে করুন , আপনার একটি দক্ষতা রয়েছে । আর এই দক্ষতা থাকার কারনে আপনি যেকোনো একটি অফিসে চাকরী করেন। ধরুন, অফিসে যাওয়ার সময় আপনাকে অনেক ভারী ব্যাগ বহন করতে হচ্ছে।

দেখা যাচ্ছে আপনি ব্যাগটি প্রতিদিন বহন করতে পারছেন না তাই চিন্তা করলেন ১০ টাকা বিনিময়ে একজন কুলিকে দিয়ে কাজটি করিয়ে নিবেন।

তো বিষয়টা কি দাড়ালো? ছোট খাটো কাজ করিয়ে নেওয়ার জন্য আপনি অল্প টাকা দিয়ে এইজন কুলি ভাড়া করলেন। কুলির অফিসে কাজ করার দক্ষতা নেই বলে অল্প টাকায় সে আপনার কাজটি করে দিবে।

অর্থাৎ , স্কিল ছাড়া কাজ করা আর একটি কুলির মধ্যে তেমন কোনো পার্থক্য নাই। যাই হোক, আমি কাউকে বা কোনো কাজকেই ছোট করছি না। শুধুমাত্র উদাহরণ দিলাম।

আর আপনাদের কাছে আমার সাজেশন হলো কোনো স্কিল ছাড়া ছোট ছোট কাজ করে ইনকামের পিছিনে না ছোটে প্রথমে যেকোনো একটি স্কিল ডেভেলোপ করেন ,তারপর দেখবেন আপনি কাজ করার মতো যথাযথ সময়ই পাবেন না। তখন কাজ আপনাকে খুজে বেড়াবে।

আপনাদের মধ্যে হয়তো অনেকেই আছেন যারা ভাবছেন , প্রথমে কোনো প্রকার স্কিল ছাড়াই কিছু টাকা ইনকাম করি তারপর ঐ টাকা দিয়ে কোর্স করে কিংবা কোনো বিজনেস দাড় করিয়ে ইনকাম করবো।

এটি ভালো আইডিয়া!

চাইলে অনলাইনে ছোট ছোট কাজ করে আয় করে তারপর কোর্স কিনে দক্ষ হয়ে ফ্রিলান্সিং বা আউটসোর্সিং করে অনলাইন ইনকাম করতে পারেন।

যাই হোক , আর কথা না বাড়িয়ে চলুন দেখে নেই যে অনলাইনে কিভাবে ছোট ছোট কাজ করে আয় করা যায়।

Picoworkers থেকে ছোট ছোত কাজ করে কত টাকা আয় করা যায়?

Picoworkers এ আপনি খুব সহজে করা যায় এমন অনেক কাজ পাবেন। যেমন , আপনি যদি g-mail  একাউন্ট তৈরি করতে পারেন তাহলে প্রতিটি জিমেল একাউন্ট তৈরি করে দেওয়ার জন্য আপনি পেয়ে যাবেন সর্বনিন্ম $0.08 .

আপনি যদি youtube ভিডিও দেখেন এবং সেটি শেয়ার করেন তাহলে আপনি পেয়ে যেতে পারেন সর্বনিন্ম $0.06.

তাছাড়া বিভিন্ন আরো কাজ যেমন survey করে , ওয়েবসাইটে ভিজিট করে , ওয়েবসাইটে সাইন আপ করেও আপনি আয় করতে পারবেন।

এখানে সর্বনিন্ম ০.০২ ডলার থেকে সর্বোচ্চ ১ ডলারের কাজও পাওয়া যায়।

আর এখানে সাইনআপ করার সাথে সাথেই আপনি ০.৫০ ডলার বোনাস পাবেন ।

Picoworkers থেকে সর্বনিন্ম কত টাকা তোলা যায়?

Picoworkers এ সাইনআপ করলেই আপনি ০.৫০ ডলার বোনাস পেয়ে যাবেন।

এই সাইন আপ বোনাস ছাড়া আপনার যদি ৫.৪০ ডলার হয় তখন আপনি paypal , skrill , coinbase এর মাধ্যমে withdraw দিতে পারবেন।

এবং পরবর্তীতে কয়েনবেস/স্ক্রিল থেকে বিকাশে টাকাটা নিয়ে নিতে পারবেন খুব সহজে। 


কতক্ষত কাজ করলে কত ডলার আয় করতে পারবো?

এখানের হিসাবটি হলো ছোট ছোট কাজ করে ইনকাম করতে হয়। তাই প্রতিটি কাজের জন্য আয়ের পরিমানও খুব সামান্য হয়

এখানে সময়ের হিসেবে আপনাকে ডলার দেওয়া হবে না। বরং দেখতে হবে আপনার কতটুকু কাজ করার স্পিড এবং মনযোগ রয়েছে।

আর খুব ভালো করে চেষ্ঠা করলে এখান থেক দৈনিক আপনি ৫-৬ ডলার আয় করতে পারবেন।

মনে করুন, আপনি এই প্লাটফর্ম থেকে জিমেইল অথবা ইউটিউব একাউন্ট খুলে দেওয়ার মাধ্যমে আয় করবেন।

তো, যেহেতু প্রতিটি জিমেইল খুলে দিলে $০.০৮ পাওয়া যায় সেহেতু আপনি যদি দৈনিক ৫০ টি একাউন্ট খুলে দেন তাহলে

৫০ * ০.০৮ = ৪ ডলার

পাশাপাশি অন্য সকল কাজ করে মোটামোটি ৫/৬ ডলার খুব সহজেই আয় করতে পারেন।

এরজন্য আপনাকে পরিশ্রম করতে হবে । আসলে প্ররিশ্রম ছাড়া কিছুই হয় না। তো এটি করার জন্য অনেক সময় ধরে আপনাকে লেপটপ কিংবা মোবাইলের সামনে বসে থাকতে হতে পারে।

এটি আপনার বিষয় এই ওয়েবসাইট থেকে ছোট ছোট কাজ করে দৈনিক ৫/৬ ডলার তথা ৫০০/৬০০ টাকা অনলাইনে আয় করবেন কিনা। যা মাস শেষে প্রায় ১২-১৪ হাজার টাকায় দাঁড়াবে।

Picoworkers এ কিভাবে কাজ করতে হয়

এই ওয়েবসাইটটিতে কাজ করার জন্য প্রথমে আপনাকে একটি একাউন্ট খুলে নিতে হবে।

Click here to signup

একাউন্ট খুলতে উপরের লিংককে ক্লিক করুন।

একাউন্ট তৈরি করে লগিন করার পর আপনি এরকম একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন-

picoworkers ওয়েব সাইট থেকে অনলাইন ইনকাম করুন
picoworkers ওয়েবসাইট থেকে অনলাইন ইনকাম করুন

আর আগেই বলে রাখি, এই ধরনের সাইট থেকে ইনকাম করতে গেলে আপনাকে একটু-আকটু  ইংরেজী জানতে হবে।

এখানে আপনাকে কিছু কাজ করতে বলা হবে এবং আপনি যে সত্যি সত্যিই কাজটি করেছেন তার একটি প্রমান আপনাকে জমা দিতে হবে।

প্রথমে আপনার পছন্দমতো যেকোনো একটি কাজ বাছাই করুন।

তারপর সেটিতে ক্লিক করলে সেই কাজটির সম্পর্কে বিস্তারিত দেখতে পাবেন।

সেখানে দেখতে পাবেন আপনাকে কি কি ধাপ অনুসরন করতে হবে এবং কি কি প্রমান জমা দিতে হবে।

তাছাড়া আরো দেখতে পাবেন এই কাজ টি করে দেওয়ার জন্য আপনি কত ডলার পাবেন, কত জন লোক কাজটি করতে পারবে এবং কতজন লোক অলরেডি কাজটি করে ফেলেছে ইত্যাদি বিষয়বস্তু।

সেখানে যা যা করতে বলা হয়েছে সে কাজগুলো করবেন । যদি ইংরেজি না জানেন তাহলে প্রথম অবস্থায় কারো সাহায্য নিন। সাধারনত একই ধরনের কাজ গুলোতে প্রায় একই ধরনের ইংরেজী শব্দ ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

আশা করি আপনি নিচের উদাহরণটি লক্ষ করলে এই বিষয়ে একদম পরিষ্কার হয়ে যাবেন।

Picoworkers-এ ছোট ছোট কাজ করে আয় করার নিয়ম

আমি জিমেইল একাউন্ট খুলে দেওয়ার একটি কাজ বাছাই করেছি।

create a gmail account-picoworkers
create a gmail account-picoworkers

ছবিটির মধ্যে আমি নীল কালি দিয়ে মার্ক করে দিয়েছি লক্ষ করুন।

এখানে আপনারা দেখতেই পাচ্ছেন যে আমি যদি একটি জিমেইল একাউন্ট খুলে দেই তাহলে আমাকে ০.০৮ ডলার দেওয়া হবে। 

এবং এখানে আরো দেখতে পাচ্ছেন যে এই কাজটি ১৯৭ জনের মধ্যে ১৫৮ জন লোক সম্পূর্ন করে ফেলেছে। তারমানে আরো ৩৯ জন কাজটি করতে পারবে।

নোটঃ যখন দেখবেন কাজটি আর মাত্র ৩/৪ জন করতে পারবে ,তাহলে সেই কাজটি আপনি আর করার চেষ্ঠা করবেন না। কারন আপনি কাজটি শেষ করতে করতে হয়তো সেই ৩/৪ জন কাজটি সম্পূর্ন করে ফেলতে পারে। যার ফলে আপনি আর টাকাটি পাবেন না।

তাই মিনিমাম ৫+ জন বাকি আছে এরকম কাজ বাছাই করবেন।

তারপর একটু নিচে আসলে দেখতে পাবেন কিভাবে কাজটি সম্পুর্ন করতে হবে এবং কি কি প্রমান দিতে হবে

ছবিটির দিকে লক্ষ করুন-

অনলাইন ইনকাম সাইট picoworkers এ কিভাবে কাজ করবেন
অনলাইন ইনকাম সাইট picoworkers এ কিভাবে কাজ করবেন

প্রথম ধাপে দেখানো হয়েছে আপনাকে কি কি করতে হবে এবং ২য় ধাপে দেখানো হয়েছে কি কি জমা দিতে হবে।

ধাপ-১ঃ আপনাকে কি কি করতে হবেঃ

  1. Go to gmail.com : জিমেইল এ প্রবেশ করুন
  2. create a new gmail account: একটি নতুন জিমেইল একাউন্ট তৈরী করুন
  3. click this link for USA name: পাশে দেওয়া লিংকটিতে ক্লিক করুন USA মানুষের নাম জানার জন্য
  4. please create a nice username: সুন্দর একটি ইউজার নেম দিন
  5. set any password like that: এই পাসওয়ার্ডটির মতো কঠিন একটি পাসওয়ার্ড দিন
  6. set any recovery mail: যেকোনো একটি রিকভারি মেইল দিন

ধাপ-২ঃ কি কি প্রমান জমা দিতে হবে?

তো আপনি যখন এ কাজগুলো করা শেষ করে ফেলবেন তথা একটি জিমেইল একাউন্ট খুলে ফেলবেন তখন আপনাকে তার প্রমান দিতে হবে।

  1. Gmail account address( আপনার তৈরিকৃত জিমেইলের এড্রেস দিতে হবে)
  2. Gmail password( পাসওয়ার্ডটি দিয়ে দিতে হবে)
  3. Recovery mail( এবং রিকোবারী মেইল দিতে হবে)

এই তিনটি প্রমান দিয়ে submit বাটনে ক্লিক করলেই আপনার কাজ শেষ।

আমি এই শর্তমতে একটি জিমেইল একাউন্ট খুলেছি এবং এবং এটির ইনফরমেশন দিয়ে submit বাটনে ক্লিক করেছি।

আমার কাজের প্রমান জমা দেওয়ার নমুনাটি দেখুন-

 picoworkers-এ  প্রমান জমা দেওয়ার নমুনা
picoworkers-এ প্রমান জমা দেওয়ার নমুনা

submit এ ক্লিক করার ১ দিনের মধ্যেই আপনি আপনার পেমেন্ট পেয়ে যাবেন।এটা বলা হয় যে সর্বোচ্চ ৭ দিনের মধ্যে পেমেন্ট করে কিন্তু এই ওয়েবসাইটে  ২/১ দিনের মধ্যেই পেমেন্ট করে দেয়।

শেষ কথা

এই ছিল আমাদের আজকের এই আর্টিকাল। এখানে আমি সুন্দর করে দেখিয়েছি যে কিভাবে অনলাইনে ছোট ছোট কাজ করে আয় রোজগার করতে হয়। আমাদের আজকের আর্টিকালটি কেমন হয়েছে তা জানাতে ভুলবেন না।

আমার লেখা আরো পোষ্ট পড়ুন-

10 thoughts on “অনলাইনে ছোট ছোট কাজ করে আয় করুন – Picoworkers”

  1. জিমেইল যদি ভেরিফাই না করি তাহলে কি কোনো সমস্যা হবে?আর যদি ভেরিফাই করতে চাই তাহলে তো অনেক ফোন নাম্বারের প্রয়োজন এগুলো কোথায় পাওয়া যাবোাাাাফ্রিতে?

    Reply
    • আপনার কাছে যদি স্যামসাং-এর পুরাতন মডেলের মোবাইল থাকে( যেমনঃ samsung galaxy j5(2016)) তাহলে সেখানে মোবাইল নাম্বার ছাড়াই আনলিমিটেড জিমেইল একাউন্ট খুলতে পারবেন।

      আর আশা করি মোবাইল ভেরিফিকেশন না করলে বায়ার রিপোর্ট করবে না। আপনি একটি ট্রাই করে দেখতে পারেন। যদি বায়ার রিপোর্ট করে তাহলে পরবর্তি এটি আর না করবেন। যেগুলোতে নম্বর ভেরিফিকেশনের কথা উল্লেখ না থাকে অইগুলো করবেন।

      আর সবচেয়ে বর কথা হলো সেখানে আরো অনেক সহজ কাজ পাওয়া যায়। সেগুলো করার চেষ্টা করুন।
      ধন্যবাদ

      Reply
  2. জিমেইল নাম্বার দিয়ে ভেরিফাই না করলে কি বায়ার রিপোর্ট করতে পারে?ভেরিফাই করার জন্য ফ্রিতে নাম্বার কই পাবো?

    Reply
  3. ভাই! আমি পিকওয়ার্কসে সাইন আপ করলাম।কিন্তু লগিনে ইনভেলিড ইমেইল বলছে।অথচ আমার ইমেইল ঠিক আছে।

    Reply

Leave a Reply

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: