ylliX - Online Advertising Networkঅনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করুন বেস্ট ২টি উপায়ে (অনলাইন আয়) - Tech BD Tricks

অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করুন বেস্ট ২টি উপায়ে (অনলাইন আয়)

অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম

অনলাইন জগতে অনেক মানুষই আছে যারা জানতে চায় কিভাবে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায়।তাদের আমি বলি, অনলাইনে টাকা ইনকাম করার অনেক রাস্তাই আছে শুধু আপনাকে সঠিক ধারনা রাখতে হবে।
তো অনেকেই আছে যাদের অনলাইন সম্পর্কে কোনো ধারনা নাই কিন্তু অধির আগ্রহ আছে অনলাইনে কাজ করে সচ্ছল হওয়ার । তাই আজকের এই পোস্টটি তাদের জন্য যারা ভাবতেছেন অনলাইনকে কাজে লাগিয়ে নিজের  একটি ক্যারিয়ার গড়বেন।

তো আমি আগেও বলেছি অনেক উপায়েই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায়।
আজকে আমি আপনাকে ২ টি উপায় নিয়ে বলবো।
তন্মধ্যে একটি হলো কোনো প্রকার দক্ষতা ছাড়াই ইনকাম আরেকটি হলো দক্ষতা অর্জন করার মাধ্যমে ইনকাম ।

দক্ষতা ছাড়া যেসকল ইনকামের কথা আপনাকে বলবো তা কখনো আপনার জন্য নিরাপদ না। অর্থাৎ আপনি হয়তো রাতারাতিই খুব কষ্ট করে কিছু টাকা ইনকাম করতে পারবেন কিন্তু তা কখনোই আপনার ক্যারিয়ার সহায় হয়ে ওঠবে না। আর আপনি যদি কোনো কাজে খুব দক্ষ হন তাহলে আপনি সেই দক্ষতার উপর আপনার ক্যারিয়ার দাড় করাতে পারবেন।

তো চলুন প্রথমে দেখি যে কি করে কোনো দক্ষতা অর্জনের মাধ্যমে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায়।

YouTube করে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম

অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য ইউটোভ আমাদের ধারুন সুযোগ করে দিয়েছে। আপনি যদি সাধারন ভিডিও এডিট করতে পারেন কিংবা ভিন্ন ভিন্ন বিভিন্ন ধরনের কন্টেন্ট তৈরী করতে পারেন তাহলে ইউটোভ হতে পারে আপনার জন্য নির্ভরযোগ্য একটি অনলাইন ইনকাম প্লাটফর্ম।

ইউটোভ বর্তমান বিশ্বে খুব জনপ্রিয় একটি প্লাটফর্ম ।প্রায় সবকিছুই ইউটোভে ভিডিও আকারে পাওয়া যায়। মানুষের যদি কোনো কিছু জানার দরকার হয় তাহলে সে ইন্সটেন্ট ইউটোভে সার্চ করে জেনে নেয়। তাছাড়া টাইম পাস, খেলাধুলা , রেসিপি সহ অবসর সময়গুলোতে কিছু সংখ্যক মানুষ ইউটোভে সময় কাটাতে ভালবাসেন।

বিশ্বের অনেক অনেক মানুষ ইউটোভে প্রতিদিন বিভিন্ন ভিডিও তৈরি করছে এবং মনিটাইজেশনের মাধ্যমে প্রতিদিন গুগল এডসেন্স থেকে হাজার হাজার ডলার ইনকাম করছে।

আপনারও যদি ভিডিও এডিটিং এর কোনো দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি ও ভিডিও তৈরি করে ইনকাম করতে পারেন ।

যেকোনো ধরনের ভিডিও-ই আপনি তৈরী করতে পারেন এবং ইউটোভ থেকে ইনকাম করতে পারেন। কিন্তু আপনার ভিডিওটি হতে হবে সবার থেকে আলাদা এবং ইন্টারেস্টিং । তাই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে চাইলে যে সকল বিষয়ের উপর মানুষ বেশি আগ্রহী সে সকল বিষয়ের উপর ভিডিও বানানো শুরু করে দিন।

অবশ্যই দক্ষতা ছাড়াও ইউটোভ থেকে টাকা ইনকাম করা যায়। তো কিভাবে কোনো প্রকার ভিডিও এডিটিং না জেনে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায় তা জানতে –

এখানে ক্লিক করে পড়ে নিন

 

ব্লগিং করে  অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম

এ কথা যখন আসে তখন প্রশ্ন আসতে পারে যে ব্লগিং কি।

ব্লগিং হলো অনলাইনে নিজের ওয়েবসাইটে লেখালেখি  করার একটি পেশা। আপনি যদি লেখালেখি করতে ভালবাসেন তাহলে আজই আপনি আপনার নিজস্ব একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন এবং লেখালেখি করা শুরু করে দিয়ে অনলাইনে ইনকাম করার একটি রাস্তা তৈরি করে নিতে পারেন।

এর জন্য অবশ্যই আপনাকে বিভিন্ন বিষয়ে দক্ষ হতে হবে । ব্লগিং করা শুরু করার আগে আপনাকে প্রথমে এসইও সম্পর্কে ধারনা রাখতে হবে । এসইও মানে হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন ।অর্থাৎ, যে অপ্টিমাইজেশন করে গুগল সার্চ ইঞ্জিনের রেঙ্কিনে আসা যায় তাকে  সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন বলে।

আপনি যদি সামান্য ইংরেজী জেনে থাকেন এবং ব্লগিং শুরু করার জন্য এসইও শিখতে চান তাহলে,

এখানে ক্লিক করুন-> free SEO course presented by Primomate

তো আপনি যখন এসইও শিখে নিবেন তখন আপনার ওয়েবসাইটে বিভিন্ন আর্টিকাল পাবলিশ করবেন।এবং পাশাপাশি আপনার আর্টিকাল্গুলো যেনো গুলো সার্চ ইঞ্জিনের প্রথম পৃষ্ঠায় আসে সেজন্য প্রত্যেকটি আর্টিকালকে এসইও করবেন। যখন মুটামটি সব ধরনের কাজ শেষ হবে এবং আপনার সাইটটি ভেলুয়েবল একটি সাইটে পরিণত হবে তখন  আপনি গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করলে আপনার সাইটটি মনিটাইজেশন হয়ে যাবে ।তখন আপনি আপনার সাইটে গুগলের এড শু করাতে পারবেন ,এবং আপনার সাইট ভিজিটর যদি এডগুলো দেখে কিংবা শু করে তাহলে আপনি তার জন্য নির্দিষ্ট একটি এমাঊন্ট পেয়ে যাবেন। তো আপনি যদি ব্লগিং করার মাধ্যমে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে বিস্তারিত জানতে নিচের আর্টিকাল পড়ুন

ব্লগ মানে কি? ব্লগ থেকে কিভাবে টাকা আয় করবেন?

৫ টি ওপায়ে ইনকাম করুন ব্লগিং করার মাধ্যমে

 

বিভিন্ন সার্ভিস প্রোভাইড করার মাধ্যমে  অনলাইনে আয়

আপনি যে কোনো বিষইয়ে যদি দক্ষ হয়ে থাকেন তাহলে আপনার সেই দক্ষতাকে অনলাইনে বিক্রি করে দিতে পারবেন।

যেমন মনে করুন আপনি খুব সুন্দর ওয়েব ডিজাইন করতে পারেন, বা আপনি খুব সুন্দর গ্রাফিক্স ডিজাইন করতে পারেন অথবা আপনি ভালো লিখালিখি করতে পারেন বা আপনি এসইও করতে পারেন ।আপনি যাই পারেন না কেনো সে বিষয়ের উপর বিভিন্ন মানুষের কাজ করানোর প্রয়োজন পড়ে। তারা জনপ্রিয় কিছু মার্কেটপ্লেসে তাদেরকে ভাড়া করে যারা  চাহিদা অনুযারী সার্ভিস দিয়ে বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে দিয়ে থাকে।

জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেসের মধ্যে রয়েছে-

upwork.com

freelancer.com

fiverr.com

peopleperhour.com

ইত্যাদি ইত্যাদি।

অনেক ক্লায়েন্ট এসব মার্কেট প্লেসে আসে তাদের সার্ভিসের জন্য লোকজন হায়ার করার জন্য।যদি আপনি সত্যি সত্যিই ভালো কাজ জানেন এবং ক্লায়েন্টের কাছে প্রমান করতে পারেন তাহলে ক্লায়েন্ট আপনাকে টাকা দিয়ে আপনার থেকে কাজটই করিয়ে নিবেন।

এভাবে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার মাধ্যমে ভালো একটি ক্যরিয়ার দাড় করাতে পারেন।

তো আপনি যদি কোনো বিষয়ে দক্ষ হয়ে থাকেন তাহলে এসব মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট খুলে বিভিন্ন মানুষের কাজ করে দেওয়ার মাধ্যমে ভালো একটি ক্যারিয়ার দাড় করাতে পারেন এবং অনলাইনে আয় করতে পারেন খুব সহজেই।

তবে এর জন্য আপনাকে অবশ্যই ধৈর্য্য ধরতে হবে। আপনি যদি ভাবে যে অনলাইনে এসেই আপনি ভালো একটি ক্যারিয়ার দাড় করিইয়ে ইনকাম করা শুরু করে দিবেন তাহলে  সেটা হবে আপনার বোকামি।

কথায় আসে প্ররিশ্রমই সৌভাগ্যের প্রসূতি।

তাই,প্ররিশ্রম করুন।আপনি সফল হবেনই।

 

তো চলুন এখন দেখি  কোনো দক্ষতা ছাড়া কিভাবে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায়-

রেফার করার মাধ্যমে অনলাইন থেকে টাকা ইনকামঃ

অনলাইনে অনেক প্লাটফর্মই আছে বিশেষ করে যারা একটি ইন্ড্রাস্টিজে নতুন আসে তখন তারা চায় মানুষ যেন তাদের প্লাটফর্মে আসে এবং তাদের সেবা গ্রহন করে।তাই তাদের ওয়েবসাইটের ইউজার বাড়ানোর জন্য তারা একটি পদ্ধতি অবলম্বন করে। যাকে আমরা রেফারেল সিস্টেম বলে চিনি।

অর্থাৎ আপনি যদি কাউকে রেফার করে কোনো ওয়েবসাইটে সাইন আপ করাতে পারেন তাহলে তার জন্য আপনি কিছু কমিশন পাবেন। বর্তমানে প্রায় অধিক সাইটেই এই রেফার সিস্টেম থাকে । তাই আপনি যেকোনো একটি সাইট কিংবা একাধিক সাইটে মানুষজনকে রেফার করে ইনকাম করতে পারেন।

এক্ষেত্রে , আপনারা যদি একটি গ্রুপ করতে পারেন তাহলে রেফার করে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা আপনার জন্য সহজ হবে।তবে , এটি দীর্ঘমেয়াদী কোনো পদ্ধতি নয়। কিন্তু আপ্নারা চাইলে চেষ্টা করতে পারেন।

সিপিএ মার্কেটিং করে ইনকাম

বর্তামান বাংলাদেশে কিছু মানুষ সিপিএ মার্কেটিং করে অনলাইন থেকে  মাসে ২ লক্ষ টাকাও ইনকাম করতেছে।

সিপিএ মার্কেটিং এর অর্থ হচ্ছে কস্ট পার একশন

অর্থাৎ আপনাকে যেকোনো একটি কম্পানির সার্ভিস প্রোভাইড করতে বলা হবে যেমন সাইন আপ করানো ,কোনো ডিজিটাল প্রোডাক্ট সেল করে দেওয়া ইত্যাদি ইত্যাদি।

এজয় প্রথমে আপনাকে যেকোনো একটি সিপিএ মার্কেটপ্লেসে লগিন করে নিতে হবে এবন সেখান থেকে যেকোনো একটি অফার সিলেক্ট করে আপনার লিঙ্কটি বিভিন্ন প্লাটফর্মে /মিডিয়াতে শেয়ার করে দিতে হবে।

যখনই কেউ আপনার দেওয়া লিংকে ক্লিক করে সাইন আপ করবে বা কোনো প্রোডাক্ট কিনবে তার জন্য সিপিএ মার্কেটপ্লেস আপনাকে ডলার দিবে।

তো বিগেনার হিসেবে আপনি সিপিএ মার্কেটপ্লেস হিসেবে বাছাই করতে পারেন-

cpa grip

cpa lead

এই দুইটি ওয়েবসাইটকে।

Picoworkers থেকে অনলাইন ইনকাম করুন

যাদের কোনো দক্ষতা নাই কিন্তু ফেসবুকে লাইক-ফলো করতে পারে, ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারে , ইউটোভ ভিডিও দেখতে পারে কিংবা জিমেইল একাউন্ট খুলতে পারে, তাদের জন্য  Picoworkers একটি নির্ভরযোগ্য প্লাটফর্ম। এখানে আপনি ছোট ছোট কাজ করার মাধ্যমে প্রতিদিন ৪-৫ ডলার ইনকাম করতে পারবেন।

তো যারা কোনো জামেলা ছাড়া প্রতিদিন ৪-৫ ডলার  বাংলাদেশি ৫০০ টাকার মতো ইনকাম করতে চাচ্ছেন তাদের জন্য ওয়েবসাইটি বেস্ট।

Picoworkers এ জয়েন করতে এখানে ক্লিক করুন

কিভাবে Picoworkers  এ আয় করতে হয় জানতে এখানে ক্লিক করুন 

 

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করে নলাইন থেকে টাকা ইনকাম

আপনি যদি ফেসবুক কিংবা অন্যসব সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে অনেক এক্সপার্ট হোন তাহলে এই ফেসবুকই হয়ে উঠতে পারে আপনার জন্য ইনকামের একটি পথ।

আপনি আপনার যেকোনো সার্ভিস ফেসবোকে প্রোমোট করাতে পারবেন। ফেসবুক তার ইউজারদেরকে বিজনেস করার রাইট দিয়ে থাকে।

আপনার যেকোনো প্রোডাক্ট সেল করার জন্য ফেসবুক হতে পারে নির্ভরযোগ্য এইটি মিডিয়া।আপনি আপনার ক্লায়েন্ট ও খুজতে পারেন ফেসবুক থেকে । মনে করুন আপনি একজনকে খুজে পেলেন যার ফেসবুক পেজে ২০০০ লাইক এনে দিতে হবে। তখন আপনি তার পেইজের লিংক বিভিন্ন যায়গার প্রোমোট করে দিয়ে লাইক এনে দিলেন এবং প্রতিটি লাইকের জন্য আপনি ২ টাকা করে দাবি করলেন।

তাছাড়া কারো প্রোডাক্ট বুস্ট করে দিয়ে তার সেলস বাড়িয়ে দেও্যার অফার করে টাকা দাবি করতে পারেন। আসলে বিভিন্ন উপায়েই সোশ্যাল মিডীয়া মার্কেটিং করা যায়।এক্ষেত্রে আপনি ইউটুভের সাহায্য নিতে পারেন।

 

ফেসবুক গ্রোপ/পেজ বিক্রি করে আনলাইন আয় করুন

আপনি ফেসবুকে গিয়ে সম্পূর্ন ফ্রিতে ফেসবুক গ্রোপ কিংবা ফেসবুক পেইজ তৈরী করতে পারেন। মজার ব্যাপার হলো সেখানে যে আপনি ইচ্ছা করলে আপনার গ্রোপ কিংবা পেইজ বিক্রি করে দিতে পারেন।

আপনার গ্রোপে যদি মেম্বারসের সংখ্যা অনেক বেশি হয় তাহলে ফেসবুকে  বিজ্ঞাপনমূলক পোস্ট করতে পারেন যে আপনি আপনার অমুক গ্রোপটি বিক্রি করতে চান। যায় আপনার গ্রোপের প্রতি ইন্টারেস্ট হয় সেই আপনার গ্রোপটি কিনে নিবে।

পেইজের বেলায় ও সেইম প্রসেস।

এখন প্রশ্ন আসে , এটাতো অনেক সময়ের ব্যাপার । একটা পেইজে অনেক অনেক লাইক /ফলোয়ারস জোগার করতে তো অনেক প্ররিশ্রম করতে হবে।

চিন্তা করবেন না –

ফ্রিতে কিভাবে আনলিমিটেড সোশ্যাল মিডিয়া রেসপন্স পাবেন জানতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন-

 

তো আজকে এই পর্যন্তই। আশা করি সবগুগো আইডিয়া আপনার খুব খুব এবং খুবই কাজে দিবে। আর যদি কোনো কিছু জানার থাকে তাহলে নিচে কমেন্ট করতে পারেন।

ধন্যবাদ।

 

3 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »
Share via
Copy link