গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম – নতুন একাউন্ট তৈরী করুন 2 মিনিটে

গুগল বর্তমানে আমাদের জীবনের সাথে সম্পূর্নভাবে জরিয়ে রয়েছে। এই মডার্ন সাইন্সের যুগে গুগলের সার্ভিস ছাড়া আমাদের জীবন কল্পনা করা যায় না। এই গুগল সম্পর্কে জানে না এরকম কোনো মানুষ নেই। কিন্তু অনেকে জানে না যে কিভাবে নতুন গুগল একাউন্ট তৈরী করতে হয়। তাই, আজকের আর্টিকালে আপনাদের গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পূর্নভাবে দেখাবো।

Let’s see – How to Create a New Google Account / Gmail account Bangla

আসলে মোবাইলে ও কম্পিউটারে গুগল একাউন্ট খোলার উপায় একদম সহজ। কিন্তু, আপনাকে নিয়ম জানতে হবে।

আরেকটি কথা মনে রাখবেন, গুগল একাউন্ট খোলার জন্য আপনার একটি স্মার্টফোন বা কম্পিউটার থাকতে হবে। এবং অবশ্যই ইন্টারনেট কানেকশান লাগবে।

এই ২ টা জিনিস হলেই আপনি একাউন্ট খোলার মাধ্যমে গুগলের বিভিন্ন সার্ভিস ব্যবহার করতে পারবেন।

আর, গুগল একাউন্ট এবং জিমেইল একাউন্ট খোলার নিয়ম একই। অর্থাৎ, গুগল একাউন্ট তৈরী করার মানেই হলো জিমেইল কিংবা ইমেইল একাউন্ট তৈরি করা।

তো চলুন আমরা নতুন একাউন্ট তৈরী করার নিয়ম জেনে নিই-

গুগল একাউন্ট কি? What is Google Account

গুগল এর সার্ভিস ব্যবহার করার লক্ষে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য দিয়ে একটি নতুন আইডি তৈরী করাকে গুগল একাউন্ট বলে।

এই একাউন্ট বিভিন্ন কাজে আপনি ব্যবহার করতে পারবেন। গুগল একাউন্ট ব্যবহার করার জন্য একটি ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড সেভ করতে হয়। এই ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে গুগল প্রদত্ত যেকোনো সার্ভিস ব্যবহার করা সম্ভব। যেমনঃ YouTube, Gmail, Maps, Meet, Google Play, ইত্যাদি।

গুগলে একটি একাউন্ট খোলার পরে আপনাকে একটি জিমেইল এড্রেস দেওয়া হবে। সেই এড্রেস ব্যবহার করে আপনি যেকাউকে ইমেইল মেসেজ পাঠাতে পারবেন।

তাছাড়া এই জিমেইল একাউন্ট কিংবা গুগল একাউন্ট ব্যবহার করে পরবর্তীতে অন্য যেকোনো ওয়েবসাইট কিংবা মোবাইল অ্যাপ্লিকেশানে একাউন্ট খুলতে পারবেন।

অবশ্যই পড়ুনঃ

গুগল একাউন্ট তৈরীর সুবিধা – যে কারনে নতুন গুগল একাউন্ট তৈরী করতে হবে – Why create Google Account

তাই চলুন আগে থেকেই জেনে নিই যে একটি গুগল একাউন্ট কি কি কাজে লাগতে পারে অথবা এর সুবিধা কি-

আমাদের কোনো কিছু জানার দরকার হলে আমরা গুগলে তা সার্চ করি। যদিও গুগলে সার্চ করার জন্য গুগল একাউন্ট দরকার পরে না।

কিন্তু, পরবর্তী ব্যবহারের জন্য Search History কিংবা Browsing History সেভ করে রাখার জন্য গুগল একাউন্ট আপনাকে খুলতেই হবে।

আরো পড়ুনঃ এসইও (SEO) কি? সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন

ইমেইল পাঠাতে (Gmail)

তথ্য প্রযুক্তির বিকাশ আমাদের যোগাযোগ ব্যবস্থাকে অনেক সহজ করে দিয়েছে। এখন আমরা চাইলেই এক স্থান থেকে আরেক স্থানে মুহূর্তের মধ্যে তথ্য প্রেরণ করতে পারি।

আর এটি আমরা আরো সহজে করতে পারি গুগলের Gmail সার্ভিসটি ব্যবহার করার মাধ্যমে।

নতুন গুগল একাউন্ট খোলার পর আপনাকে একটি এড্রেস দেওয়া হবে।

যেমনঃ [email protected]

আপনার এই ঠিকানা থেকে আপনি অন্য যেকোনো জিমেইল ঠিকানায় মেইল করতে পারবেন একদম বিনামূল্যে।

তাই যোগাযোগের জন্য জিমেইল একাউন্ট প্রয়োজন।

ইউটিউব ভিডিও স্ট্রিমিং (YouTube)

কথা যখন চলে আসে ইউটিউবের তখন গুগল একাউন্ট খোলার উপায় জানাটা আমাদের জন্য আবশ্যক হয়ে যায়।

কেননা, ইউটিউব ছাড়া আমাদের একটি দিনও কল্পনা করা যায় না। বিনোদন থেকে শুরু করে লেখাপড়া, ব্যাবসা-বানিজ্য সকল কিছু জুড়েই ইউটিউওব আমাদের মাঝে জায়গা দখল করে নিয়েছে।

তাই, আপনি যদি মনে করেন আপনি ইউটিউবে ভিডিও দেখবেন কিংবা নিজে ভিডিও তৈরি করে ইউটিউবে আপলোড দিবেন তাহলে আপনাকে গুগল একাউন্ট খুলতে হবেই।

আরো জানুনঃ

গেম বা অ্যাপ ডাউনলোড (Play Store)

দৈনন্দিন জীবনে আমাদের মোবাইলে অনেক ধরনের অ্যাপ প্রয়োজন পরে কিংবা বাচ্চাদের গেম ডাউনলোডের জন্য Google Play Store এর সাহায্য নিতে হয়।

Google Play Store থেকে মোবাইলে যেকোনো গেম বা অ্যাপ ডাউনলোড করার জন্য আপনাকে একটি গুগল একাউন্ট খুলে নিতে হবে।

তা না হলে আপনি আপনার মোবাইলে প্লে স্টোর থেকে কোনো প্রকার অ্যাপ বা গেম ডাউনলোড করতে পারবেন না।

গুগল ড্রাইভ ব্যাবহার (Google Drive)

Google Drive হলো এক ধরনের অনলাইন মেমুরী কার্ড যেখানে ছবি, অডিও, ভিডিও সহ সবকিছু জমা করে রাখা যায়।

যেখানে, 4GB একটি মেমুরীকার্ড কেনার জন্য আমাদের ৫০০ টাকার মতো খরচ করতে হয় সেখানে গুগল আমাদের জন্য দিচ্ছে 15GB ভার্চুয়াল মেমুরীকার্ড একদম ফ্রি।

গুগল ড্রাইভ এর মাধ্যমে আপনি 15GB স্পেসের যেকোনো ধরনের জিনিস রাখতে পারবেন।

আর এই জন্য আপনাকে একটি গুগল একাউন্ট খুলতে হবে।

গুগলের অন্যান্য সার্ভিস

তাছাড়া গুগলের আরো অনেক সার্ভিস রয়েছে যেগুলো ব্যবহার করার জন্য অবশ্যই গুগল একাউন্ট খুলতে হবে। যেমনঃ Google Maps, Google Meet, Google News, Google Translate, Google Docs, Google Sheets, Blogger, Google Ads, AdSense সহ আরো অনেক কিছু।

এ সকল সার্ভিসগুলো ব্যবহার করতে হলে আপনাকে গুগল একাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে।

নতুন একাউন্ট তৈরী

আপনি যদি কোনো ই-কমার্স ওয়েবসাইট কিংবা অন্য যেকোনো ওয়েবসাইটে নতুন একাউন্ট তৈরী করতে চান তাহলে গুগল একাউন্ট দরকার হতে পারে।

যেমন মনে করুন, আপনি নামকরা ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান Alibaba তে নতুন একাউন্ট তৈরি করতে চান তাহলে গুগল একাউন্টের সাহায্যে তা খুব সহজেই করতে পারবেন।

তাছাড়া যদি অনলাইন মার্কেটপ্লেস ফাইবার একাউন্ট খুলতে চান তাহলেও এক ক্লিকের মাধ্যমে গুগল একাউন্টের সাহায্যে তা করতে পারবেন।

আরো জানুনঃ ফাইবার একাউন্ট খোলার নিয়ম

এইবার আসুন জেনে নেওয়া যাক, গুগল একাউন্ট খুলতে কি কি লাগে।

নতুন গুগল একাউন্ট তৈরী করতে কি কি লাগে? –

কিভাবে গুগল একাউন্ট খুলতে হয় সেটি জানার আগে প্রশ্ন হলো গুগল একাউন্ট খুলতে কি কি তথ্য লাগে।

আসলে গুগল একাউন্ট খুলতে তেমন কিছু লাগে না। আপনার কাছে একটি ডিভাইজ (মোবাইল/কম্পিউটার/ল্যাপটপ) এবং ইন্টারনেট কানেকশন হলেই আপনি একটি গুগল একাউন্ট খুলতে পারবেন।

কিন্তু, গুগল একাউন্ট খোলার যে নিয়ম রয়েছে তা আপনাকে জানতে হবে।

গুগল একাউন্ট খোলার সময় বিভিন্ন ব্যাক্তিগত তথ্য প্রয়োজন হয়। যেমনঃ নাম, লিঙ্গ, জন্মতারিখ, ইত্যাদি।

এছাড়াও ভেরিফিকেশনের উদ্দেশ্যে গুগল একাউন্ট খোলার সময় মোবাইল নাম্বার চাওয়া হয়ে থাকে।

আমার গুগল একাউন্টের পাসওয়ার্ড কত যদি সেটি ভুলে যান তাহলে সেই মোবাইল নাম্বার দিয়ে একাউন্ট রিকভারি করতে পারবেন।

তাছাড়া, গুগল একাউন্ট খুলতে হলে বয়স অবশ্যই ১৩বছর বা তার বেশি দিতে হবে।

তো আজকের আর্টিকালে কিভাবে মোবাইল এবং কম্পিউটারের মাধ্যমে গুগল একাউন্ট খুলতে হয় সে সহজ উপায় বলে দিব।

তো চলুন আর কথা না বাড়িয়ে দেখে নিন-

কিভাবে গুগল একাউন্ট খোলা যায়? – জিমেইল একাউন্ট খোলার নিয়ম -Kivabe Google Account Khulbo

গুগল একাউন্ট খোলা একদম সহজ। নিচের নিয়ম মেনে আপনাকে গুগল একাউন্ট খোলতে হবে। তাহলে জিমেইল একাউন্ট খোলার নিয়ম ও আপনি জেনে যাবেন।

গুগল একাউন্ট কিংবা জিমেইল একাউন্ট খুলতে হলে প্রথমে আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে আপনি কি ধরনের একাউন্ট খুলতে চান।

সাধারণত গুগলে ২ ধরনের জিমেইল একাউন্ট খোলা যায়। যথাঃ

  1. For myself
  2. To manage my business

অর্থাৎ, আপনি আপনার পার্সোনাল একাউন্ট তৈরী করতে পারবেন কিংবা আপনার বিজনেস এর জন্য গুগল একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।

আমি সবসময় পার্সোনাল জিমেইল একাউন্ট তৈরী করার জন্য বলে থাকি।

কারণ, আপনি যদি বিজনেস একাউন্ট তৈরী করেন তাহলে গুগলের শুধুমাত্র অল্প কিছু সার্ভিস যেমন Gmail, Calendar, Docs, Sites, Groups, and Video ব্যবহার করতে পারবেন।

বাকি সব সার্ভিসগুলো আপনি ভোগ করতে পারবেন না।

তারপর কিছু ইনফরমেশন (যেমনঃ নাম, ইউজারনেম, এবং পাসওয়ার্ড) দিয়ে আপনাকে গুগল বা জিমেইল একাউন্ট খুলতে হবে।

নতুন একাউন্ট তৈরী বা গুগল একাউন্ট খোলার সম্পূর্ন নিয়ম – How to create Google account bangla

একটি নতুন গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম ধাপে ধাপে নিচে দেখানো হলো। সঠিক ভাবে একটি নতুন একাউন্ট তৈরী করতে হলে সম্পূর্ন ধাপ অনুসরণ করুন।

১। ব্রাউজার থেকে Create your Google Account এ প্রবেশ করুন

প্রথমে আপনাকে একটি ব্রাউজার ওপেন করতে হবে। এক্ষেত্রে যদি আপনার কম্পিউটারে Chrome browser ইন্সটল করা থাকে তাহলে এতে প্রবেশ করুন।

তারপর Create your Google Account পেইজে প্রবেশ করতে হবে। আপনি চাইলে এই লিংকে ক্লিক করে প্রবেশ করতে পারেন।

তাছাড়া google.com এ গিয়ে Sign-in এ ক্লিক করে তারপর create a new account এ ক্লিক করে প্রবেশ করতে পারেন।

গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম

২। নাম, ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড দিন

তারপর আপনাকে আপনার নতুন গুগল একাউন্ট তৈরীর জন্য একটি নাম, ইউজারনেম এবং একটি পাসওয়ার্ড দিতে হবে।

উদাহরণস্বরূপ,

গুগল একাউন্ট খোলার উদাহরন

এখানে অবশ্যই Available Username দিতে হবে। অর্থাৎ, এমন একটি ইউজারনেম দিতে হবে যা আগে কখনো ব্যবহার করা হয়নি।

উপরের ছবিতে দেখতে পাচ্ছেন, [email protected] জিমেইল এড্রেসটি আগে নেওয়া হয়ে গেছে। তাই এটি আপনি নিতে পারবেন না।

এবং নিচে আপনাকে আরেকটি ইউজারনেম সাজেস্ট করা হচ্ছে আপনি চাইলে তা নিতে পারেন। কিংবা অন্যকিছু আপনার পছন্দমতো নেওয়ার চেষ্ঠা করতে পারেন।

৩। মোবাইল নাম্বার, জন্ম তারিখ এবং লিঙ্গ নির্বাচন করুন

তৃতীয় ধাপে আপনাকে একটি মোবাইল নাম্বার দিতে হবে। তারপর আপনার জন্ম তারিখ এবং আপনি নারী নাকি পুরুষ এটা দিয়ে Next এ ক্লিক করতে হবে।

আপনি যদি পুরুষ হয়ে থাকেন তাহলে দিবেন Male এবং নারী হলে দিবেন Female.

Next এ ক্লিক করার সাথে সাথে আপনি যেই মোবাইল নাম্বার দিয়েছেন সেটাতে একটি মেসেজ আসবে। এবং সেই মেসেজ এ ৬ সংখ্যার একটি পিন নাম্বার থাকবে।

এই ৬ সংখ্যার পিন নাম্বারটি আপনাকে পরবর্তী পেইজে বসিয়ে দিতে হবে।

.৪। Accept Google Policy and Terms

আপনার নতুন একটি গুগল একাউন্ট তৈরি করা হয়ে গেছে। এখন Google Policy and Terms এর একটি পেইজ আপনাকে দেখানো হবে।

আপনাকে শুধুমাত্র Agree তে ক্লিক করে দিতে হবে।

Agree তে ক্লিক করার মানে হলো আপনি গুগল এর নিয়ম-কানুন এর সাথে সম্মত।

মোবাইলের মাধ্যমে গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম

উপরের নিয়ম অনুসারে মোবাইল এবং কম্পিউটার উভয় মাধ্যমে গুগল একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।

কিন্তু মোবাইলের মাধ্যমে গুগল একাউন্ট খোলার আরেকটি নিয়ম রয়েছে। যেটির জন্য আপনাকে কোনো ব্রাউজার ইন্সটল করতে হবে না।

  • এর জন্য প্রথমে মোবাইলের Setting অপশনে যান
  • নিচে গেলে দেখতে পাবেন Account বা Google নামের একটি অপশন রয়েছে।
  • যদি Account অপশন থাকে তাহলে এটাতে ক্লিক করলে Google নামে আরেকটি অপশন পাবেন।
  • আপনাকে শুধুমাত্র Google এ ক্লিক করতে হবে।
  • তারপর ক্লিক করতে হবে Add a New Google account এ।
  • এর পর উপরে দেখানো নিয়ম অনুসারে একটি নতুন গুগল একাউন্ট তৈরী করে নিতে পারবেন খুব সহজে।

আরো জানুনঃ

জিমেইল একাউন্ট খোলার নিয়ম – kivabe gmail account khulbo

Gmail একাউন্ট খোলার জন্য আপনার মোবাইলে জিমেইল অ্যাপ ডাউনলোড করা থাকতে হবে। তাইলে আপনি গুগল একাউন্ট দিয়ে জিমেইল অ্যাপ চালাতে পারবেন।

জিমেইল মূলত গুগলেরই একটি মেইল সার্ভিস। তাই, গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম জানলেই আপনার জিমেইল একাউন্ট খোলার নিয়ম আয়ত্ত হয়ে যাবে।

তাই, জিমেইল একাউন্ট ব্যবহার করে ইমেইল পাঠাতে চাইলে আগে গুগল নতুন একাউট তৈরী করা আয়ত্ত করুন।

Conclusion – গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম

আশা করি গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম আপনারা ইতিমধ্যে জেনে গেছেন। যদি নতুন একাউন্ট তৈরী করতে গিয়ে কোনো প্রকার সমস্যার সম্মুখীন হোন তাহলে নির্দ্বীধায় কমেন্ট করে আমাকে জানাবেন।

ইনশাআল্লাহ, ২-১ ঘন্টার মধ্যে আপনার কমেন্টে রিপ্লাই করে জানিয়ে দিব।

আর যদি আরো প্রশ্ন থাকে জিমেইল একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে তাহলে আমি বলব জিমেইল একাউন্ট আর গুগল একাউন্ট একই কথা।

আরো জানুনঃ

Leave a Reply

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: