Homeওয়েবসাইটওয়েবসাইট কাকে বলে? কত প্রকার এবং কিভাবে তৈরি করা হয়?

ওয়েবসাইট কাকে বলে? কত প্রকার এবং কিভাবে তৈরি করা হয়?

ওয়েবসাইট কাকে বলে সংজ্ঞাঃ একই ডোমেইনের অধীনে একাধিক ওয়েব পেইজের সমসষ্টকে ওয়েবসাইট বলে। অন্যভাবে বলতে গেলে কোনো ওয়েব সার্ভারের রাখা ওয়েব পেইজ, ছবি, অডিও, ভিডিও ও অন্যান্য ডিজিটাল তথ্যের সমষ্টিকে ওয়েবসাইট বলে।

ওয়েব(Web) শব্দের অর্থ জাল-বিশেষ আর সাইট(Site) শব্দের অর্থ একটি নির্দিষ্ট জায়গা বা স্থান।

অর্থাৎ, ওয়েবসাইট(Website)-এর অর্থ দাঁড়ায় জালের মতো বিস্তৃত জায়গা বা স্থান। মূলত, ইন্টারনেটের যেই স্থানে জালের মতো তথ্য ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে তাকে ওয়েবসাইট বলে।

আপনি যদি অনলাইনে নতুন হয়ে থাকেন কিংবা ইন্টারনেট নিয়ে ঘাটাঘাটি করে থাকেন, তাহলে ওয়েবসাইট কি (What is Website in Bangla), ওয়েবসাইট কাকে বলে, এই বিষয়ে আপনার জানার আগ্রহ থাকতে পারে।

তাই আজকের আর্টিকালে আপনাদের বুঝিয়ে বলবো ওয়েবসাইট কাকে বলে এবং ইন্টারনেটে কত প্রকারের ওয়েবসাইট রয়েছে। তারপর বলবো ওয়েবসাইট কিভাবে তৈরী করতে হয়, ওয়েবসাইট তৈরির খরচ কত

ওয়েবসাইট কাকে বলে – বুঝিয়ে বলুন

সহজ কথা বলতে গেলে ইন্টারনেটে আমরা যা কিছু দেখতে পাই সবই ওয়েবসাইট। যেমন গুগল, ইউটিউব, ফেসবুক, টেক বিডি ট্রিকস ইত্যাদি।

প্রচলিত সংজ্ঞা অনুসারে, ডোমেইন এর মাধ্যমে দর্শন যোগ্য ওয়েব সার্ভারে জমা রাখা ওয়েব পেইজ, ছবি, অডিও, ভিডিও ও অন্যান্য ডিজিটাল তথ্যের সমষ্টিকে একসাথে সাইট বা ওয়েবসাইট বলে যা ইন্টারনেট বা ল্যানের মাধ্যমে অ্যাক্সেস করা যায়।

উদাহরনস্বরূপ আমাদের TechBdtricks.com

Techbdtricks.com হচ্ছে একটি ওয়েবসাইট। কেননা এখানে বিভিন্ন ধরনের পেইজ, আর্টিকাল, ছবি রয়েছে এবং এটি ডোমেইনের মাধ্যমে এক্সেস করা যায়।

যেমন ধরুন, কোনো ইন্টারনেট ব্যবহারকারী যদি আমাদের ডোমেইনটি (TechBdtricks.com) তাদের ব্রাউজারে এড্রেস বারে লিখে সার্চ করে তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটটি তারা এক্সেস করতে পারবে।

আবার অন্যভাবে বলতে গেলে ইন্টারনেটে যা কিছু রয়েছে সবই ওয়েবসাইট। যেমন ধরুন, আপনার মোবাইলে ডেটা চালু করে গুগলে ডুকেছেন, গুগল একটি ওয়েবসাইট বা সার্চ ইঞ্জিন।

তারপর, গুগল থেকে “ওয়েবসাইট কাকে বলে” সার্চ করে আমাদের এখানে এসেছেন, আমাদের এটিও একটি ওয়েবসাইট।

আবার বিকেল বেলায় একটু ফেসবুকে ঘুরাঘুরি করেন, ঐইটাও ওয়েবসাইট। ইউটুব, টুইটার, পিন্টারেস্ট যাই বলুন না কেন সবকিছুর সংজ্ঞাই তারা একটি ওয়েবসাইট।

প্রায় সকল ওয়েবসাইটেই বিনামূল্যে প্রবেশ করা যায়। এবং যেকোনো তথ্য বিনামূল্যে সংগ্রহ করা যায়। তবে, অনেক ওয়েবসাইট থেকে বিভিন্ন মূল্যবান তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে অনেক সময় তাদেরকে টাকা দিতে হয়।

যেমন ধরুন, আপনি Udemy এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারবেন ঠিকই, কিন্তু সেখান থেকে কোনো তথ্য বা ইনফরমেশন সংগ্রহ করতে পারবেন না।

কেননা, Udemy একটি অনলাইন কোর্স ভিত্তিক ওয়েবসাইট। সেখান থেকে তথ্য বা কোনো কিছু শিখতে হলে আপনাকে টাকা দিয়ে ভর্তি হতে হবে।

তাছাড়া অনলাইনে যত ব্লগ ভিত্তিক ওয়েবসাইট রয়েছে তা সবই বিনামূল্যে এক্সেস করা যায়।

সমস্ত উন্মুক্ত ওয়েবসাইটগুলোকে সমষ্টিগতভাবে “ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব ” (World Wide Web) বা “বিশ্বব্যাপী জাল” নাম দেয়া হয়েছে। যাকে সংক্ষেপে বলা হয় www.

ওয়েব পেইজ কাকে বলে

ইন্টারনেটে যত পৃষ্টা বা পেইজ আছে তারা প্রত্যেকেই এক-একটি ওয়েব পেইজ।

যেমন ধরুন,

আপনি প্রথমে আপনার ব্রাউজারে প্রবেশ করেছেন। যেকোনো ব্রাউজারে (যেমনঃ Chrome, Opera mini, UC browser) এ ক্লিক করার সাথে সাথে যেই পেইজটি ওপেন হয়েছে সেটি হচ্ছে ওয়েব ব্রাউজার হোম পেইজ

তারপর সেখান থেকে কোনো কিছু সার্চ করার জন্য Google.com এ প্রবেশ করেছেন। এটি হচ্ছে গুগলের সার্চ ইঞ্জিন পেইজ

এবং সেখানে “ওয়েবসাইট কাকে বলে” এই বাক্যটি লিখে সার্চ করার পর হাজার হাজার ফলাফল নিয়ে আরেকটি পেইজ ওপেন হয়েছে। একে বলে সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেইজ (Search Engine Result Page). একে আবার সংক্ষেপে SERP বলা হয়।

উপরোক্ত কি-ওয়ার্ডটি লিখে সার্চ করার পর আপনার সামনে হাজার হাজার ওয়েবসাইটের লিংক চলে এসেছে। আপনি সেখান থেকে “ওয়েবসাইট কাকে বলে? কত প্রকার এবং কিভাবে তৈরি করতে হয়? – Tech BD Tricks” এই টাইটেল এ ক্লিক করে সরাসরি আমাদের ওয়েবসাইটের একটি ওয়েব পেইজে প্রবেশ করেছেন।

মূলত আপনি এখন যেই আর্টিকালটি এখন পড়তেছেন এটি একটি পেইজেই মধ্যে লেখা হয়েছে। আর যেহেতু পেইজটি কোনো কাগজের পেইজ নয়, একটি ইন্টারনেট পেইজ, সেহেতু একেই বলা হয় ওয়েব পেইজ।

আশা করি, ওয়েব পেইজ কাকে বলে এটি খুব ভালোভাবে বুজতে পেরেছেন।

মূলত ইন্টারনেটে কোনো কিছু রাখার জন্য(টেক্সট, ইমেজ, অডিও, ভিডিও) যে পেইজ ব্যবহার করা হয় তাকে ওয়েব পেইজ বলে। আর অনেকগুলো ওয়েব পেইজ একত্রিত হয়ে ওয়েবসাইট গঠন করে।

ওয়েবসাইট এবং ওয়েব পেইজের মধ্যে পার্থক্য

ওয়েব পেইজ হলো ইন্টারনেটে থাকা একটি নির্দিষ্ট পৃষ্ঠা। আর অনেকগুলো ওয়েব পেইজ মিলিত হয়ে তৈরি হয় একটি ওয়েবসাইট।

ওয়েব পেইজের ঠিকানাকে বলা হয় ইউ আর এল (ULR) ওয়েবসাইটের ঠিকানাকে বলা হয় ডোমেইন নেম (Domain Name).

একটি ওয়েবসাইটে অনেকগুলো ওয়েব পেইজ বা পৃষ্ঠা থাকে। কিন্তু ওয়েব পেইজে কোনো পৃষ্ঠা থাকতে পারে না। বরং অন্য পৃষ্ঠার লিংক থাকতে পারে।

ওয়েবসাইট একটি কম্পানি বা অর্গানাইজেশন হতে পারে। কিন্তু ওয়েব পেইজ নির্দিষ্ট কোনো কম্পানি হতে পারে না।

ওয়েবসাইটের ঠিকানাকে কি বলে

আপনি যদি নতুন হয়ে থাকেন তাহলে জানবেন না যে ওয়েবসাইটের ঠিকানাকে কি বলে। তাই আজকে জেনে নিন।

ওয়েবসাইটের একক ঠিকানাকে বলা হয় ডোমেইন নেম। কোনো ইন্টারনেট ব্যবহারকারী যদি নির্দিষ্ট কোনো ওয়েবসাইট খুজে বের করতে চায়, তাহলে তাদের ব্রাউজারের এড্রেস বারে ঐ ওয়েবসাইটের ডোমেইন নেম লিখে সার্চ করতে হবে।

যেমন, আপনি যদি আমাদের ওয়েবসাইটের ঠিকানায় আসতে চান তাহলে আপনার ব্রাউজারে গিয়ে Techbdtricks.com লিখে সার্চ করতে হবে।

এটাই আমাদের ওয়েবসাইটের ঠিকানা। আপনি যদি আমাদের ডোমেইন নাম লিখে ব্রাউজারের এড্রেস বারে সার্চ করেন তাহলে ব্রাউজার সেটিকে ইউআরএল এ রূপান্তর করে আমাদের ওয়েবসাইটে পাঠিয়ে দিবে।

ইউআরএল বা URL দেখতে এরকমঃ

  • https://techbdtricks.com
  • https://www.techbdtricks.com

ওয়েবসাইট এর কাজ কি

বিভিন্ন ওয়েবসাইটের কাজ বিভিন্ন রকম। আসলে ওয়েবসাইটের মালিকেরা নির্দিষ্ট কোনো লক্ষে তাদের ওয়েবসাইট তৈরি করে থাকে।

যেমনঃ আমাদের ওয়েবসাইটটি তৈরি করার লক্ষ বা উদ্দেশ্য হলো টেকনোলজী বিষয়ক তথ্য মানুষদের কাছে পৌছে দেওয়া, নিয়মিত আর্টিকাল পাবলিশ করা, এবং যখন আমাদের পাঠকের সংখ্যা বেড়ে যাবে তখন গুগল এডসেন্স এর মাধ্যমে এটি থেকে টাকা আয় করা

তাই আপনি বলতে পারেন, আমাদের ওয়েবসাইট এর কাজ হলো লেখালেখি করা এবং মানুষদের উপকার করা। যাকে সংক্ষেপে ব্লগ বলা হয়।

অনেক ওয়েবসাইটের কাজ হলো নিউজ বা খবর মানুষের কাছে পৌছে দেওয়া

আবার অনেক ওয়েবসাইটের কাজ হলো অনলাইনে কোর্স বিক্রি করা। যেমনঃ Udemy, Skillshare ইত্যাদি।

আবার কিছু ওয়েবসাইট ইন্টারনেটে মার্কেটপ্লেসের মতো কাজ করে। যেমনঃ Fiverr , UpWork, Freelancer ইত্যাদি।

তো বুঝতেই পারছেন যে বিভিন্ন ওয়েবসাইটের কাজ বিভিন্ন রকম হতে পারে।

ওয়েবসাইট কত প্রকার

ওয়েবসাইট আসলে অনেক প্রকার। অনেকে শুনে থাকবেন ওয়েবসাইট ২ প্রকার, কিন্তু এটা সত্য নয়।

ওয়েব পেইজ ২ প্রকার যথাঃ Static Webpage এবং Dynamic Webpage.

কিন্তু, এগুলো ওয়েবসাইটের প্রকারভেদ নয়। এগুলো হলো ওয়েব পেইজের প্রকারভেদ। একটি ওয়েবসাইটে এই দুই ধরনের ওয়েব পেইজই থাকতে পারে।

তো প্রশ্ন আসতে পারে ওয়েবসাইট কত প্রকার। চলুন ওয়েবসাইটের প্রকারভেদ সম্পর্কে জেনে আসি।

Personal Blog Website

ওয়েবসাইট কত প্রকার এর কথা বলতে গেলে প্রথমেই চলে আসে পার্সোনাল ব্লগ ওয়েবসাইট (personal Blog Website) এর কথা। ইন্টারনেটে তথ্যবহুল ওয়েবসাইটকে ব্লগ ওয়েবসাইট বলে।

উদাহরনঃ আমাদের ওয়েবসাইট হলো একটি ব্লগ ওয়েবসাইট।

ব্লগ ওয়েবসাইটে প্রচুর পরিমানে তথ্য থাকে। এবং প্রতিনিয়ত এ ধরনের ওয়েবসাইটে নতুন নতুন তথ্য যুক্ত হতে থাকে।

এই ধরনের ওয়েবসাইটগুলো নির্দিষ্ট একটি টপিক বা নিশ কেন্দ্র করে তৈরি করা হয়।

অনেক টপিকের ব্লগ ওয়েবসাইট রয়েছে। যেমনঃ Health, Make Money, Relationship, Food, Technology, News, ইত্যাদি।

Social Media Website

Social Media” বাংলায় একে বলা হয় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম। পৃথিবীতে অনেকে সামাজিক যোগাগের মাধ্যম রয়েছে যেমন Facebook, Twitter, YouTube ইত্যাদি।

মনে রাখবেন, এই ধরনের সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোও একটি ওয়েবসাইট। তবে আমরা যারা মোবাইলে এইগুলো ব্যবহার করি তারা এটির মোবাইল ভারসন বা app হিসেবে ব্যবহার করছেন।

E-Commerce Website

E-Commerce Website বা ই-কমার্স ওয়েবসাইট হলো পণ্য বিক্রি করার ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইটগুলো তাদের নিজস্ব পণ্য বাজারে বিক্রি করে থাকে।

যেমন বাংলাদেশের পরিচিত ই-কমার্স ওয়েবসাইট Evaly, Daraz, BDShop ইত্যাদি।

Marketplace Based Website

মার্কেটপ্লেস বলতে কোনো পণ্য ক্রয়-বিক্রয় করার স্থানকে বুঝায়। কিন্তু, বর্তমানে আমরা ইন্টারনেটে অনলাইনে পণ্য বা সার্ভিস ক্রয় বিক্রয় করতে পারি।

আর এর সম্পূর্ন কৃর্তত্ব এই Marketplace Based Website এর। পৃথিবীতে অনেক অনলাইন মার্কেটপ্লেস রয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য অনলাইন মার্কেটপ্লেস হলোঃ Fiverr, Upwork, Freelancer.

আরো পড়ুনঃ

ফাইবার কি? Fiverr এ কি কি কাজ পাওয়া যায়

company website

যেকোনো কম্পানি তাদের সার্ভিস আরো ভালোভাবে পৌছে দিতে ওয়েবসাইট ব্যবহার করে থাকে। একে মূলত কম্পানি ওয়েবসাইট বলে।

উদাহরনস্বরূপঃ Moz, Ahrefs, Traackr, Soundstripe, MOAT ইত্যাদি। তারা তাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিভিন্ন মানুষকে বিভিন্ন সার্ভিস দিয়ে থাকে।

ওয়েবসাইট কিভাবে তৈরী করতে হয়

ওয়েবসাইট তৈরী করা খুবই সহজ। আপনি ঘরে বসে নিজে নিজেই ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

ওয়েবসাইট তৈরি করতে হলে প্রথমে কয়েকটি জিনিসের প্রয়োজন হয়। ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে তা আগে জোগার করুন।

আপনি ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য হোস্টিং ক্রয় করলে আপনাকে একটি সি-প্যানেল দেওয়া হবে।

তারপর হোস্টিং এর সি-প্যানেল থেকে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করুন।

ওয়ার্ডপ্রেস হচ্ছে একটি কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম এবং খুব সহজেই ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়।

ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করার পর আপনার ওয়েবসাইটে ওয়ার্ডপ্রেস থিম ইন্সটল করলে আপনার ওয়েবসাইট রেডী।

তারপর আপনি আপনার মতো করে সাইট সাজিয়ে নিতে পারবেন।

একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে কত টাকা খরচ হয়

একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে কত টাকা খরচ হয় তা নির্ভর করে আপনি কেমন ধরনের ওয়েবসাইট বানাতে চান তার উপর।

আপনি যদি একটি ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান, এবং তা আপনি নিজে নিজেই করতে চান তাহলে আপনার সর্বোচ্চ ৩০০০-৪০০০ টাকা খরচ হবে।

তাছাড়া অনেক ওয়েবসাইট তৈরি করতে লাখ টাকার উপরেও খরচ হয়ে থাকে।

আমাদের সর্বশেষ কথা

আশা করি ওয়েবসাইট কাকে বলে খুব ভালো করে বুঝে গেছেন। তারপরও যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তাহলে নিচে কমেন্ট করে আমাকে জানাবেন।

আপনার কি কোনো ওয়েবসাইট আছে? আমাদেরকে দিয়ে কি ফ্রিতে ওয়েবসাইট বানিয়ে নিতে চান?

Tech BD Trickshttp://techbdtricks.com
তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন খবর সবার আগে পেতে চাইলে Tech BD Tricks এর সাথেই থাকুন। দেশের বেকারত্ব হ্রাস এবং টেকনোলজি বিষয়ক তথ্য মানুষের কাছে সঠিকভাবে পোছে দিতে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।
RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recenty published

error: Content is protected !!