Homeওয়েবসাইটডোমেইন কি? ডোমেইন কত প্রকার এবং কিভাবে কিনব?

ডোমেইন কি? ডোমেইন কত প্রকার এবং কিভাবে কিনব?

ডোমেইন হলো কোনো ওয়েবসাইটের একক নাম, পরিচয় কিংবা ঠিকানা। ডোমেইন নেম একক। কেননা, কেউ যদি একটি নামের ডোমেইন কিনে নেয়, পরবর্তীতে সেই নামের ডোমেইন আর কেউ কিনতে পারে না। আজকে আমরা ডোমেইন কি, কত প্রকার এবং কিভাবে ডোমেইন কিনতে হয় এই সম্পর্কে জানবো।

পৃথিবীতে সবকিছুরই একটি নাম থাকে। মানুষ থেকে শুরু করে, গাছ-পালা, পশু-পাখি, কল-কারখানা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কিংবা দোকানপাট। যাই বলুন না কেন, পরিচয় বহনের জন্য নাম খুবই গুরুত্বপূর্ন।

ঠিক তেমনি, ইন্টারনেটে মিলিয়ন-মিলিয়ন ওয়েবসাইট আছে, এবং প্রত্যেকটি ওয়েবসাইটেরই নির্দিষ্ট একটি নাম রয়েছে। এবং একটি ওয়েবসাইটের নামের সাথে অন্য কোনো ওয়েবসাইটের নামের কোনো মিল থাকে না।

যদি techbdtricks.com এর কথা বলা হয়, তাহলে নির্দিষ্ট করে আমাদের ওয়েবসাইটকেই বুঝানো হয়ে থাকে। সহজ কথায় বলতে গেলে এটাই আমাদের ডোমেইন নেম বা ওয়েবসাইটের নাম। একে ইংরেজীতে বলা হয় Domain Name.

ডোমেইন নেম একটি ওয়েবসাইটকে খুব সহজেই খুজে বের করতে সহায়তা করে। কেউ যদি তাদের ব্রাউজারে নির্দিষ্ট কোনো ওয়েবসাইটের ডোমেইন নাম লিখে সার্চ করে তাহলে ওয়েবসাইটটি সে সহজেই খুজে পায়।

ডোমেইন এর গুরুত্ব

পৃথিবীতে অনেক বাড়িঘর আছে। আর ইন্টারনেটের বাড়িঘর বলতে বুঝানো হয়ে থাকে ওয়েবসাইটকে। তথ্য-প্রযুক্তির উন্নতির সাথে সাথে আমাদের দৈনিক চলাফেরা ওয়েবসাইট নির্ভর হয়ে যাচ্ছে।

কেউ যদি এখন কোনো কিছু কিনতে চায় তাহলে সে কষ্ট করে বাজারে যায় না, বরং ইন্টারনেটে কোনো ই-কমার্স সাইট থেকে পণ্যটি কিনে নেয়। কোনো কিছু জানার দরকার হলে আমরা ইন্টারনেট থেকে জেনে নিই। অনেকে আবার ওয়েবসাইট তৈরি করে বিভিন্ন উপায়ে উপার্জন করে।

সবকিছু আস্তে-আস্তে ওয়েবসাইট নির্ভর হয়ে যাওয়ার কারনে, চারদিকে এর এতো বেশি আলোচনা। হয়তো বাংলাদেশের পেক্ষাপটে প্রত্যেকের ওয়েবসাইট নেই। কিন্তু উন্নত বিশ্বে প্রায় সবারই কমপক্ষে একটা ওয়েবসাইট রয়েছে।

প্রতিটি ওয়েবসাইটেরই একটি নির্দিষ্ট একক ডোমেইন থাকে। আর যেহেতু পৃথিবীতে দিন দিন ওয়েবসাইটের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে তাই ভালোমানের ডোমেইন নেম খুজে পাওয়াটাও এখন আমাদের জন্য প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

যখনই কোনো ডোমেইন নেম পছন্দ হয় এবং সেটি কিনতে যাই, তখনই দেখি সেটি আরেকজন কিনে বসে আসে। আবার কেউ কেউ ভালো মানের ডোমেইন আগে থেকে কিনে রেখে সেটি চড়া দামে বিক্রি করার নোটিশ দিয়ে থাকে। অর্থাৎ, ডোমেইন ফ্লিপিং ব্যাবসা করে।

ইন্টারনেট শুরু প্রথম দিকে হয়তো ২ শব্দের কিংবা ৩ শব্দের অর্থবোধক ডোমেইন পাওয়া যেত। কিন্তু, বর্তমানে ওয়েবসাইটের সংখ্যা এতোটাই বেড়েছে যে ৮-১০ শব্দের একটি অর্থবোধক ডোমেইন খুজে বের করা ব্যার্থ প্রচেষ্টায় রূপান্তর হয়ে গেছে।

দিন যত বাড়বে, ভালো ডোমেইন পাওয়ার প্রবণতা তত কমতে থাকবে। হতে পারে আজ থেকে ১০ বছর পর ১৫ শব্দের কমে কোনো ডোমেইন পাওয়াই যাবে না। তাই, বর্তমান সময়ে নিজের পছন্দমত ডোমেইন কিনে রাখার গুরুত্ব অপরিসীম।

তাছাড়া, আপনি অবশ্যই চাইবেন না যে আপনার নামের টপ লেভেল ডোমেইন (.com) টা অন্য আরেকজনের কাছে থাকুক।তাই আমি আমার নামের ডোমেইন shakibhasan.com কিনে রেখে দিয়েছি।

যাইহোক, আমি বলবো ২ টি কারনে ডোমেইন এর গুরুত্ব বেশি। যাথা-

  1. নিজের ব্যান্ড বিল্ড-আপ করতে ওয়েবসাইট তৈরি।
  2. চড়া দামে বিক্রি করার উদ্দেশ্যে ডোমেইন কিনে রাখা।

তবে চড়া দামে ডোমেইন বিক্রি করার উদ্দেশ্যে ডোমেইন কিনলে অর্থাৎ ডোমেইন ফ্লিপিং বিজনেস করতে গেলে এই স্বমন্ধে আপনার লেখাপড়া করতে হবে, মার্কেটিং রিসার্চ করতে হবে। তা না হলে ক্ষতির সম্মুখিন হতে পারেন।

ডোমেইন এক্সটেনশন কি?

ডোমেইন নামের অনেক এক্সটেনশন হয়ে থাকে। মূলত ডোমেইনের আধিকত্য বাড়ানোর জন্য এই এক্সটেনশনের ব্যবহার।

মূল ডোমেইনের পরে যেই শব্দটি যুক্ত থাকে তাকে ডোমেইনের এক্সটেনশন বলে। যেমনঃ .com .org .net ইত্যাদি।

পৃথিবীতে অনেক মানুষ রয়েছে, যাদের অনেকের চিন্তা ভাবনার সাথে অন্যদের চিন্তাভাবনা হুবহু মিলে যায়। অনেকের তো আবার চেহারার সাথে চেহারাও মিলে যায়।

অনেকের পছন্দের রঙ একই রকম, আবার অনেকের একই ধরনের নাম পছন্দ। এখন মনে করুন, আমাদের ওয়েবসাইটের নাম দিয়েছি টেক বিডি ট্রিকস। আপনারও হয়তো এই নামটি দেওয়ার ইচ্ছা থাকতে পারে।

হ্যা, পৃথিবীতে একই নামের অনেক কম্পানি থাকতে পারে। কিন্তু, ডোমেইন তো আর একাধিক থাকতে পারে না!

এ সমস্যা সমাধানের জন্য আবিষ্কৃত হয় ডোমেইন এক্সটেনশনের। আমরা Techbdtricks.com কিনে নিয়েছি তো কি হয়েছে!

আপনি চাইলে নিতে পারেন Techbdtricks.net কিংবা Techbdtricks.org অথবা অন্য কিছু। তবে, পৃথিবীতে সবচেয়ে জনপ্রিয় ডোমেইন এক্সটেনশন হলো .com এক্সটেনশন।

তারপর, কেউ যদি তার পছন্দের নামের ডোমেইন খুজে না পায়, তাহলে তার বিকল্প হিসেবে .net নেওয়ার চেষ্ঠা করে। এখন ডট কম ডোমেইনের বিকল্প আরেকটি জনপ্রিয় ডোমেইন হলো ডট কো (.co)

ডোমেইন কত প্রকার?

ডোমেইন মূলত ৬ প্রকার। যথাঃ

  1. Top-Level Domains (TLD)
  2. Country Code Top-Level Domain (ccTLD)
  3. Generic Top-Level Domain (gTLD)
  4. Second-Level Domain (SLD)
  5. Third-Level Domain
  6. Premium Domain

এখান থেকে সেকেন্ড লেভেল ডোমেইন এবং থার্ড লেভেল ডোমেইন তেমন বেশি গুরুত্ব নয়। আর প্রিমিয়াম ডোমেইন হচ্ছে যেই ডোমেইনগুলো প্রচুর টাকা দিয়ে কিনে নিতে হয়। তাই আমি প্রথম ৩ টি ডোমেইনের প্রকারভেদ সম্পর্কে নিচে বিস্তারিত আলোচনা করছি।

টপ লেভেল ডোমেইন কি?

ইন্টারনেটে যেই ডোমেইনের অগ্রাধিকার বেশি তাদেরকে টপ লেভেল ডোমেইন (Top Level Domain বা TLD) বলে।

যেমনঃ .com, .org, .edu, .gov, .info, .net ইত্যাদি।

সাধারন কাজ বা ব্যবসা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান, অরগানাইজেশন, ইনফরমেশন ও নেটওয়ার্কিং সাইটের জন্য এই টপ লেভেল এর ডোমেইন ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

বর্তমানে ১০০০ এর বেশি টপ লেভেল ডোমেইন রয়েছে। আপনি টপ লেভেল ডোমেইনগুলো দেখে আসতে পারেন এই লিংক থেকে

কান্টি কোড টপ লেভেল ডোমেইন কি?

নির্দিষ্ট কোনো দেশকে কে কেন্দ্র করে যদি কোনো ওয়েবসাইট বানাতে হয় তাহলে কান্টি কোড টপ লেভেল ডোমেইন (Country Code Top Level Domain বা ccTLD) বেছে নিতে হয়।

যেমনঃ- .us (America) .uk (United Kingdom) .au (Australia) .bd(Bangladesh), ইত্যাদি।

যেমন আমাদের ওয়েবসাইটটি শুধুমাত্র বাংলাদেশের মানুষের জন্য, তাই আমি চাইলে Techbdtricks.com.bd নিতে পারতাম।

যদি ঘরে বসে শুধুমাত্র আমেরিকাতে কোনো বিজনেস শুরু করতে চান তাহলে business.us নিতে পারেন। এইগুলো হচ্ছে ccTLD বা Country Code Top Level Domain.

জেনেরিক টপ লেভেল ডোমেইন কি?

জেনেরিক টপ লেভেল ডোমেইন বা Generic Top-Level Domain (gTLD) হলো যেই ডোমেইনগুলো নির্দিষ্ট কোনো বিষয়কে বুঝায়। যেমন .edu, .blog, .tech, .shop, .yoga ইত্যাদি

যেমন যদি কেউ একটি দোকানের ওয়েবসাইট বানাতে চায় তাহলে সে .shop নিতে পারে। এটি নির্দিষ্ট করে একটি দোকানের ওয়েবসাইটকে বুঝায়।

আবার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান .edu ব্যাবহার করে। এইগুলোই মূলত জেনেরিক টপ লেভেল ডোমেইন বা gTLD .

ডোমেইন নেম কি একক ও অদ্বিতীয়?

হ্যা।

ডোমেইন নেম একক এবং অদ্বিতীয়

কেউ যদি একটি নামের ডোমেইন কিনে নেয় , সেটি পরবর্তীতে আর কেউ কিনতে পারে না।

২০২১ সালের পেক্ষাপটে পৃথিবীতে প্রায় ৮০০ কুটি মানুষ রয়েছে। এবং প্রায় ২০০ কুটি ওয়েবসাইট রয়েছে।

প্রত্যেকটি ওয়েবসাইটেরই আলাদা আলাদা ডোমেইন রয়েছে। কিন্তু এমনও ওয়েবসাইট রয়েছে যাদের নাম একই কিন্তু ডোমেইন ভিন্ন। একই নামের পরে তারা ভিন্ন এক্সটেনশন যুক্ত করে নতুন একটি একক ডোমেইন তৈরি করেছে।

যেমন ধরুন, আমরা techbdtricks.com ডোমেইনটি কিনে নিয়েছি। কিন্তু আরেকজন techbdtricks.net অথবা techbdtricks.org দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারে। অর্থাৎ একই নামের ভিন্ন এক্সটেনশনযুক্ত ডোমেইন কেনা যায়।

কিন্তু ডোমেইন নাম একক এবং অদ্বিতীয়। একই নাম এবং একই এক্সটেনশনযুক্ত ডোমেইন কেনা অসম্ভব।

সাব ডোমেইন কি

মুলত, মূল ডোমেইনের আগে যে শব্দ যুক্ত হয়ে আরেকটি নতুন ডোমেইন তৈরি করে তাকে সাব ডোমেইন বলে।

সাব ডোমেইন হলো আপনার আপনার মূল ডোমেইনের শাখা ডোমেইন। যেমন ধরুন, আমাদের ওয়েবসাইট techbdtricks.com এর শাখা ডোমেইন হতে পারে service.techbdtricks.com অথবা shop.techbdtricks.com ইত্যাদি।

ডোমেইন কিনতে খরচ কত?

বিভিন্ন ডোমেইনের দাম বিভিন্ন রকম। পৃথিবীতে সবচেয়ে জনপ্রিয় ডোমেইন কিনতে খরচ হয় বাংলাদেশের টাকায় ৭০০-৯০০ টাকা

বিভিন্ন কম্পানি বিভিন্ন দামে ডোমেইন বিক্রি করে। তবে ডোমেইন কেনার জন্য সবচেয়ে বিশ্বস্ত কম্পানি হলো Namecheap.com

নেমচিপ থেকে আপনি .com ডোমেইন কিনতে গেলে প্রায় ৮ ডলার খরচ করতে হবে। যা বাংলা টাকায় ৭০০ টাকার মতো।

তাছাড়া বাংলাদেশি অনেক ভালো ভালো কম্পানি যেমন Hostever বা Exonhost থেকে ডোমেইন কিনে নিতে পারেন ৮০০-৯০০ টাকা খরচ করে।

মনে রাখবেন, ডোমেইন প্রতি বছর রিনিউ করতে হয়। অর্থাৎ, আপনি ৭০০-৯০০ টাকায় এক বছরের জন্য ডোমেইন কিনলে পরবর্তী বছরে তা ৮০০- ১১০০ টাকায় রিনিউ করতে হবে। অর্থাৎ, প্রতি বছরে বছরে ডোমেইনের ভাড়া দিতে হয়।

কেনার আগে দেখে নেওয়ার বিষয়ঃ

ডোমেইন কেনার আগে আপনাকে কিছু জিনিস অবশ্যই দেখা নেওয়া উচিত। এই জিনিসগুল না দেখে নিলে পরবর্তীতে আপনাকে পস্তাতে হবে।

  • প্রথমত, চেষ্টা করবেন .com ডোমেইন নেওয়ার জন্য। যদি আপনার পছন্দের নামের .com ডোমেইন না পান তাহলে .net বা অন্য কোনো টপ লেভেল ডোমেইন
  • ডোমেইন শর্ট রাখার চেষ্টা করবেন। ৬ থেকে ১৫ শব্দের মাঝে রাখার চেষ্টা করবেন।
  • উচ্চারন করতে এবং মনে রাখতে সহজ হয় এমন ডোমেইন নেওয়ার চেষ্টা করবেন।
  • ডোমেইনের মধ্যে কোনো হাইফেন(-) কিংবা গানিতিক সংখ্যা রাখা যাবে না।
  • মনে রাখবেন, আপনার ডোমেইনই আপনার বিজনেস। তাই বিশ্বস্ত কোনো কম্পানির কাছ থেকে ডোমেইন কিনবেন। যদি কম টাকার অফার পেয়ে বাটপার কম্পানির কাছ থেকে ডোমেইন কিনেন তাহলে কয়দিন পর আপনার ডোমেইন উদাও হয়ে যাবে।
  • অবশ্যই পরিচিত কোনো কম্পানি থেকে ডোমেইন কিনবেন এবং ফুল কন্ট্রোল প্যানেল বুঝে নিবেন।

তো এই কয়টা বিষয় ডোমেইন কেনার আগে দেখে নিলেই হবে আশা করি। দয়া করে কোনো বাটপারের পাল্লায় পড়বেন না।

ডোমেইন কিভাবে কিনব

ডোমেইন কেনার উপায় অনেক সহজ। আপনি যদি মনে করেন, ডোমেইন কিভাবে কিনব তাহলে স্টেপগুলো অনুসরণ করুন।

আমি নেমচিপ থেকে ডোমেইন কেনার নিয়ম দেখাচ্ছি। আপনি এই নিয়মে যেকোনো যায়গা থেকে ডোমেইন কিনতে পারবেন।

স্টেপ ১ঃ

Namecheap ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। নিচে ডোমেইন সার্চ করার জন্য একটি বক্স দেখতে পাবেন।

নেমচিপে প্রবেশ করুন

স্টেপ ২ঃ

আপনার পছন্দের ডোমেইনটি এখানে লিখুন এখন Search এ ক্লিক করুন

ডোমেইন সার্চ করুন

স্টেপ ৩ঃ

যদি আপনার পছন্দের ডোমেইন নামটি এভেলেবেল থাকে, তাহলে Add to cart নামে একটি অপশন দেখতে পাবেন। ডোমেইনটি কেনার জন্য আপনাকে এখানে ক্লিক করতে হবে।

ডোমেইন জমা করুন

স্টেপ ৪ঃ

তারপর, আপনাকে চেক-আউট করতে হবে। আপনি ২ ভাবে চেকআউট করতে পারেন। প্রথমত, উপরে ডলার চিহ্নিত কার্টে ক্লিক করে view cart এর মাধ্যমে চেকআউট করতে পারেন। অথবা নিচে checkout নামে একটি অপশন পেয়ে যাবেন।

ডোমেইন চেকাআউট করুন

স্টেপ ৫ঃ

Checkout করার পর আপনাকে অর্ডার নিশ্চিত করতে হবে। এখান থেকে অর্ডার নিশ্চিত করুন। যদি ওয়েবসাইটে কোনো অফার থাকে, তাহলে সেই অফারের প্রোমো কোড এখানে দিতে পারেন। তাহলে আপনি ডোমেইন কেনার জন্য ডিস্কাউন্ট পেয়ে যাবে।

 অর্ডার নিশ্চিত করুন

স্টেপ ৬ঃ

তারপর আপনার একটি একাউন্ট তৈরি করতে হবে। যদি আগে থেকে একাউন্ট তৈরি করা থাকে তাহলে সাইন-ইন করুন। আর না হয় নতুন একাউন্ট তৈরি করুন

একাউন্ট তৈরি করুন

স্টেপ ৭ঃ

পেমেন্ট নিশ্চিত করুন। যেহেতু নেমচিপ ইন্টারনেশনাল কম্পানি এখানে আপনি বিকাশ কিংবা রকেট দিয়ে পেমেট করতে পারবেন না। এখানে পেমেন্ট করতে হলে আপনাকে একটি ইন্টারনেশনাল কার্ড দরকার হবে।

তবে বাংলাদেশের কম্পানি থেকে ডোমেইন কিনলে আপনি বিকাশে পেমেন্ট করতে পারবেন।

ডোমেইন কিনতে পেমেন্ট করুন

হয়ে গেল আপনার ডোমেইন কিনা। আশা করি ডোমেইন কিভাবে কিনব এই নিয়ে আপনার মনে আর কোনো প্রশ্ন নেই।

সর্বশেষ কথা

আমি শাকিব হাসান । একাই এই ব্লগের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। আমার মূল উদ্দেশ্য হলো আপনাদের জন্য কিছু করা। কিন্তু এতে আপনাদের সহযোগীতা কাম্য। আপনারা যদি চান, যে আমার এই ব্লগে অবদান রাখবেন তাহলে যোগাযোগ করবেন।

আর। আমাদের ব্লগ বেশি বেশি শেয়ার করে মানুষের কাছে পৌছে দিবেন এবং যেকোনো সমস্যা‍র কথা নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। সকল প্রশ্নের উত্তর যথাযথভাবে দেওয়ার চেষ্টা করবো।

নিজে শিখুন, অন্যকে শেখানোর চেষ্টা করুন।

Tech BD Trickshttp://techbdtricks.com
তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন খবর সবার আগে পেতে চাইলে Tech BD Tricks এর সাথেই থাকুন। দেশের বেকারত্ব হ্রাস এবং টেকনোলজি বিষয়ক তথ্য মানুষের কাছে সঠিকভাবে পোছে দিতে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।
RELATED ARTICLES

4 COMMENTS

    • হ্যা,
      ডোমেইন রিনিউ না করলে ডোমেইনটি এক্সপায়ার হয়ে যাবে। তখন অন্য কেউ চাইলে আপনার ডোমেইনটি কিনে নিতে পারবে।

  1. সুন্দর এবং শিক্ষনীয় আর্টিকেল উপহার দেয়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ শাকিব ভাই।🌹

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recenty published

error: Content is protected !!