Wednesday, August 4, 2021
Homeব্লগিংব্লগ তৈরি করার নিয়ম ২০২১-খুব সহজেই একটি ব্লগ বানিয়ে নিন

ব্লগ তৈরি করার নিয়ম ২০২১-খুব সহজেই একটি ব্লগ বানিয়ে নিন

ব্লগ তৈরি করার নিয়ম নিয়ে আমাদের আজকের আর্টিকালটি। আজকের আর্টিকালে আপনি জানতে পারবেন একটি ফ্রি ব্লগ সাইট তৈরি করার মাধ্যমে কিভাবে আয় করা যায়। ব্লগ হলো মূলত লেখালেখি করে আয় করার ওয়েবসাইট যেখানে প্রতিদিন আর্টিকাল পাবলিশ করা হয়। তো, কিভাবে আপনি এমন একটি ব্লগ বানাবেন যেখান থেকে প্রতিদিন আয় করা সম্ভব?

তো চলুন জেনে নেওয়া যাক-

ব্লগ কী?

ব্লগ হলো লেখালেখি করার একটি জন্য একটি ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট। সেখানে ব্যাক্তির ইচ্ছামত আর্টিকাল পাবলিশ করা যায়। এবং এসইও সহ বিভিন্ন মার্কেটিং-এর মাধ্যমে ব্লগের প্রচার করে সেখান থেকে আয় করা যায়। ওয়েবলগ নামক শব্দ থেকে ব্লগ এর উৎপত্তি।

আর ব্লগিং হলো অনলাইনে নিজের ওয়েবসাইটে লেখালেখি করার একটি পেশা। যদি ব্লগিং করেন তাকে ব্লগার বলা হয়।

অনলাইনে নিজের একটি ব্লগ তৈরি করে আয় করাটাই হলো মূলত ব্লগিং পেশা। এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে যে, অন্য কারো ওয়েবসাইটে লেখালেখি করাকে ব্লগিং বলে না। সেটাকে আপনি অথিতি ব্লগিং (Guest Blogging) বলতে পারেন।

যেমন আপনি ফেসবুকে লেখালেখি করেন, এর মানে হতে পারেন আপনি একজন ফেসবুকার। কিন্তু ব্লগিং করার জন্য, আপনার নিজস্ব একটি ওয়েবসাইট থাকতে হবে। এবং সেখানে প্রতিনিয়ত আর্টিকাল পাবলিশ করে যেতে হবে।

ব্লগ তৈরি করতে কি কি প্রয়োজন?

ব্লগ যেহেতু লেখা করে আয় করার একটি ওয়েবসাইট সেহেতু ব্লগ তৈরি করতে হলে আগে আপনাকে একটি ওয়েবসাইট বানাতে হবে।

এখন ওয়েবসাইট ২ উপায়ে বানানো যায়। যথাঃ

  1. ফ্রি ওয়েবসাইট
  2. পেইড ওয়েবসাইট

ফ্রি ব্লগ তৈরি করতে কি কি প্রয়োজন?

ফ্রি ব্লগ তৈরি করতে আপনাকে এক টাকাও খরচ করতে হবে না। আপনার যদি Blogger.com স্বমন্ধে আইডিয়া থাকে তাহলে ঘরে বসেই ২ মিনিটেই একটি ফ্রি ব্লগ তৈরি করে নিতে পারেন। কিন্তু সেক্ষত্রে আপনি কোনো উচ্চমানের ডোমেইন নাম পাবেন না। আপনাকে সাব-ডোমেইন ব্যবহার করতে হবে।

যেমনঃ www.mydomain.blogspot.com

যদি ব্লগার দিয়ে বিনামূল্যে ওয়েবসাইট তৈরির নিয়ম জানতে চান তাহলে, এই আর্টিকালটি পড়ুন

পেইড ব্লগ তৈরি করতে কি কি প্রয়োজন?

পেইড ওয়েবসাইট বা ব্লগ বানাতে হলে আপনাকে সেই ব্লগের জন্য একটি ডোমেইন এবং হোস্টিং লাগবে।

জেনে রাখা ভালোঃ ডোমেইন হলো ওয়েবসাইটের একটি ঠিকানা বা এড্রেস এবং হোস্টিং হলো আপনার ওয়েবসাইটের ফাইলগুলো( টেক্সট, ছবি, ভিডিও, ইত্যাদি) রাখার জন্য একটা স্পেস বা ম্যামরী।

তো পেইড ব্লগ বানাতে হলে বিভিন্ন হোস্টিং কম্পানি থেকেই এইগুলো আপনাকে কিনে নিতে হবে। এবং বছরে বছরে এর জন্য ভাড়া দিতে হবে।

কিভাবে ব্লগ সাইট বানাব?

উপরে বলেছি যে ব্লগ সাইট বানানোও ২ টি মূল নিয়ম রয়েছে। আপনি চাইলে এটি ফ্রি-ফ্রি বানিয়ে নিতে পারেন অর্থবা টাকা দিয়ে ডোমেইন হোস্টিং কিনে বানাতে পারেন। মূল বিষয় হচ্ছে আপনার একটি ওয়েবসাইট থাকলেই আপনি ব্লগিং করতে পারছেন।

কিন্তু পেইড ওয়েবসাইটে ফ্রি ওয়েবসাইটের চেয়ে একটু বেশি সুযোগ সুবিধা পাওয়া যায়। যেমন আপনি যদি Blogger দিয়ে ফ্রি ওয়েবসাইট বানিয়ে গুগল এডসেস্ন-এর মাধ্যমে টাকা আয় করতে চান তাহলে সেক্ষেত্রে Blogger আপনার কাছ থেকে কিছু অর্থ রেখে দিবে।

তাছাড়া ফ্রি ব্লগে ভিজিটর আনাও একটু কষ্টসাধ্য ব্যাপার। বেশিরভাগ ভিজিটর সেখানে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম থেকে আনতে হয়। এসইও করে এই ধরনের ব্লগ রেংক করানো ও একটু কষ্টকর হয়ে যায়।

তাই আমার সাজেশন থাকবে পেইড ওয়েবসাইট দিয়ে ব্লগ সাইট বানাবেন। কেননা সেখানে সম্পূর্ন মালিকানা আপনার হাতে থাকে এবং ব্লগটিকে আরো বেশি প্রোফেশনাল মনে হয়। তবে অবশ্যই বিশ্বস্ত কম্পানি থেকে ডোমেইন হোস্টিং ক্রয় করবেন।

ডোমেইন হোস্টিং কিনে কিভাবে ব্লগ বানাব?

ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনার পর আপনার প্রথম কাজ হচ্ছে আপনার কেনা ডোমেইনটি একটি হোস্টিং এর সাথে কানেক্ট করা। কিন্তু প্রথমবার ডোমেইন হোস্টিং ক্রয় করলে অটোমেটিক ডোমেইনের সাথে হোস্টিং-এর নেম সার্ভার সংযুক্ত হয়ে যায়।

[বলে রাখা ভাল, এসব কম্পানি থেকে ডোমেইন এবং হোস্টিং কেনার মানে এই নয় যে সারাজীবনের জন্য আপনি ডোমেইন/ হোস্টিংটি কিনে নিলেন। এর মানে হলো নির্দিষ্ট অর্থ দিয়ে আপনি তাদের কাছ থেকে এটি এক বছরের/ আরো বেশি সময়ের জন্য ভাড়া নিলেন।]

কিভাবে ব্লগ বানানোর জন্য ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করব?

তো ডোমেইন হোস্টিং সেটাপ করার পর আপনার প্রথম কাজ হলো ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করা।

আপনি যখন একটি হোস্টিং কিনবেন তখন আপনাকে একটি সিপেনেল দেওয়া হবে। সেই সিপেনেল থেকে আপনি আপনার সার্ভার কন্ট্রোল করতে পারবেন। অর্থাৎ, আপনি সেখানে বিভিন্ন ওয়েবসাইট রাখতে পারবেন, ওয়েবসাইটের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করতে পারবেন, ওয়েবসাইটের বেক-আপ রাখতে পারবেন ইত্যাদি।

যেহেতো ওয়েবসাইটের ডিজাইন সহ বিভিন্ন দিক যেমন আর্টিকাল পাবলিশ করা, পেইজ ক্রিয়েট করা ইত্যদি ম্যানেজ করতে ওয়ার্ডপ্রেসের দরকার হয়, সেহেতু সিপেনেল থেকে আপনাকে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করে নিতে হবে ।

এর জন্য নিচে গেলে ওয়ার্ডপ্রেস নামক একটি অপশন আপনারা দেখতে পারবেন। শুধু আপনাকে সেখানে ক্লিক করে আপনার ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করে নিতে হবে।

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগে লগিন করবেন

ওয়েবসাইটের জন্য ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করা হয়ে গেলে সি পেনেলের আর তেমন বেশি একটা দরকার পরে না। তখন আপনি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে আপনার সম্পূর্ণ সাইট কন্ট্রোল করতে পারেন।

এর জন্য আপনাকে ওয়ার্ডপ্রেসে লগিন করতে হবে। ওয়ার্ডপ্রেসে লগিন করার জন্য আপনার সাইটের এড্রেসের পর wp-admin লিখে যেকোনো ব্রাউজারের উ-আর-এল বক্সে সার্চ করতে হবে । যেমন www.Abcd.com/wp-admin

তারপর ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করার সময় যেই পাসওয়ার্ড দিয়েছিলেন তা দিয়ে লগিন করতে হবে।

এখন লগিন তো হয়ে গেলো কিন্তু আপনার সাইট এখনও তৈরি হয় নি। কারন আপনার সাইটের কোনো কাঠামো বা ডিজাইন আপনি ঠিক করেন নি।

তাই সাইটের কাঠামো ঠিক করার জন্য আপনার সাইটে একটি Theme ইন্সটল করতে হবে।

থিম ইন্সটল করার জন্য বামপাশের মেনু থেকে appearance-এ চলে যাবেন। এবং সেখান থেকে Theme অপশনে গিয়ে আপনার যে থিমটি পছন্দ হয় তা বাছাই করে নিবেন। এবং সেটি ইন্সটল করে এক্টিবেট করে ফেলুন। তারপর আপনার ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। এবং দেখতে পাবেন সেখানে নতুন একটি ডিজাইন তৈরি হয়ে গেছে।

ব্যাস, হয়ে গেলো আপনার সাইট। এখন মেনু থেকে Post অপশনে গিয়ে আপনার ইচ্ছামতো পোস্ট তৈরি করতে পারবেন।

ফ্রি ব্লগ সাইট তৈরি করার নিয়ম

ফ্রি ব্লগ সাইট তৈরি করার জন্য আপনাকে প্রথমে চলে যেতে হবে blogger.com এ । তারপর যা যা করতে হবেঃ

১। Create Your Blog বাটনে ক্লিক করতে হবেঃ

২। আপনার ব্লগের একটি টাইটেল দিতে হবেঃ

৩। ব্লগের জন্য একটি Available Domain বাছাই করতে হবে।

ব্যাস, হয়ে গেল আপনার ফ্রি ব্লগ। এখন এখানেও থিম অপশন রয়েছে। সেখান থেকে যেকোনো একটি ডিজাইন সিলেক্ট করে দিলেই আপনার ওয়েবসাইটতি ওয়ি ডিজাইনের মতো হয়ে যাবে।

ব্লগ তৈরি করে আয় করা যায় কিভাবে?

এবার হচ্ছে মূল পাঠ। কারন, আপনি একটি ব্লগ খুলে রেখে দিলেন কিন্তু সেখান থেকে কোনো আয় হচ্ছে না। এটা তো আর হয় না। তাই আপনাকে আয় করতে হবে। ব্লগ তৈরি করে আয় করার উপায়গুলো হলোঃ

  1. গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে ব্লগ থেকে টাকা আয়।
  2. ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয়
  3. এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম
  4. ব্যাকলিংক বিক্রি করে টাকা আয়
  5. সাইটের এসইও করে অর্থ উপার্জন
  6. অন্যান্য সাইটের জন্য ক্লায়েন্ট জোগার করে দিয়ে রোজগার
  7. স্পন্সর বিজ্ঞাপন দিয়ে এবং ইত্যাদি উপায়ে ব্লগ তৈরি করে আয় করা যায়।

তো ব্লগ তৈরি করে কিভাবে এর থেকে আয় করা যায় তা আরো বিস্তারিত জানতে নিচের আর্টিকালটি পড়ুন দেখে নিন-

Tech BD Trickshttp://techbdtricks.com
তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন খবর সবার আগে পেতে চাইলে Tech BD Tricks এর সাথেই থাকুন। দেশের বেকারত্ব হ্রাস এবং টেকনোলজি বিষয়ক তথ্য মানুষের কাছে সঠিকভাবে পোছে দিতে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।
RELATED ARTICLES

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recenty published

error: Content is protected !!