ব্লগিং

ফ্রিতে ওয়েবসাইট তৈরির পদ্ধতি

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যাদের অনলাইন সম্পর্কে অনেক ধারনা আছে। যারা ভাবছেন আপনার একটি ওয়েবসাইট থাকবে , কিন্তু কিভাবে বানাবেন বুঝে ওঠতে পারতেছেন না , এই আর্টিকালটি তাদের জন্য খুবই সহায়ক হবে। কারন আমি আজকে দেখাবো কিভাবে একদম ফ্রিতে ব্লগারের মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন।

তো চলুন শুরু করি । কিভাবে ফ্রিতে একটি ওয়েবসাইট বানাতে পারি তার উত্তর জেনে নেই।

প্রথমে আপনাদের ব্লগারে একটি একাউন্ট তৈরি করতে হবে।

ব্লগারে একাউন্ট তৈরি করার মানে হলো আপনি আপনার জিমেইল দিয়ে ব্লগারে লগিন করবেন , এবং সেখান থেকে আপনার ওয়েবসাইটের জন্য একটি এড্রেস ক্রিয়েট করবেন।

সাধারনত ওয়েবসাইটের এড্রেস হয়ে থাকে এরকমঃ www.example.com

কিন্তু ফ্রি ওয়েবসাইট গুলোতে ডোমেইন নেইম বা ওয়েবসাইটের এড্রেস হয় অন্যরকম।

ফ্রি ওয়েবসাইট গুলো থেকে সাধারনত আপনি একটি সাব-ডোমেইন বা উপ-ঠিকানা পেতে পারেন।

এটার মতোঃ www.name.example.com

যাই হোক না কেনো, আপনি তো ফ্রিতে একটি ওয়েবসাইট পাচ্ছেন-ই।

ব্লগারে সাইট বানালে আপনার ডোমেইন হবে এরকমঃ name.blogspot.com

ব্লগারে ওয়েবসাইট তৈরি করার সম্পূর্ন প্রক্রিয়া

-প্রথমে আপনাকে blogger.com এ প্রবেশ করতে হবে। তো আপনি চাইলে নিচের লিংকে ক্লিক করে প্রবেশ করতে পারেন।

ব্লগারে প্রবেশ করুন

-প্রবেশ করার সাথে সাথেই আপনি ঐ পেজের মধ্যে দেখতে পারবেন Create Your Blog লেখা আছে। আপনি ওখানে ক্লিক করে দেন।

তারপর নিন্মে বর্ণীত নিয়মগুলো অনুসরণ করুন-

১। আপনার যেকোনো একটি ই-মেইল দিয়ে সাইন-ইন করুন।

২। আপনার ওয়েবসাইটের টাইটেল, এবেলেবল একটি এড্রেস এবং একটি থিম চয়েজ করুন

উদাহরণস্বরূপ, টাইটেল দিতে পারেন ” TECHBDTRCIKS-এ আপনাকে স্বাগতম” এবং এড্রেস হতে পারে। techbdtricks.blogspot.com

অবশ্যই available আছে এমন একটি ডোমেইন এড্রেস আপনাকে সিলেক্ট করতে হবে।

৩। থিম সিলেক্ট করে create blog এ ক্লিক করলেই আপনার একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি হয়ে গেল।

এখন আপনি আপনার দেওয়া এড্রেসটি কোনো ব্রাউওজারের এড্রেসবারে লিখে সার্চ করলে পেয়ে যাবেন। কিন্তু সেখানে কোনো পোস্ট অথবা পেইজ দেখতে পাবেন না।

তো ওয়েবসাইটে পোস্ট অথবা পেইজ যেকোনো জিনিস দেখানোর জন্য আপনাকে এইগুলো ব্লগার থেকে ক্রিয়েট করতে হবে।

কিভাবে ব্লগারে আর্টিকাল পোস্ট করবো?

১।ব্লগারে নতুন পোস্ট করার জন্য প্রথমে New Post এ ক্লিক করুন।

প্রথমে-New-Post-এ-ক্লিক-করুন
প্রথমে-New-Post-এ-ক্লিক-করুন

তারপর একটি টাইটেল দিন এবং আর্টিকাল্টি লিখে পাব্লিশ করে দিন

আশা করি ফ্রিতে একটি ওয়েবসাইট খুলার এবং সেখানে আর্টিকাল পাবলিশ করার প্রক্রিয়াটি বুঝতে পেরেছেন।

এখন, ব্লগার সম্পর্কে কিছু প্রশ্নের উত্তর দিব।

ব্লগার সম্পর্কে কিছু প্রশ্ন ও উত্তরঃ

ব্লগার দিয়ে কি একদম বিনামূল্যে ওয়েবসাইট বানানো যায়?

উত্তরঃ হ্যা। ব্লগার দিয়ে একদম বিনামূল্যে ওয়েবসাইট বানাতে পারবেন। কিন্তু সেক্ষেত্রে আপনাকে একটি সাবডোমেইন ব্যাবহার করতে হবে। যেমনঃ techbdtricks.blogspot.com

পরবর্তীতে কি এই সাবডোমেইন থেকে উচ্চমানের ডোমেইনে সাইটটি পরিবর্তন করতে পারব?

হ্যা। করতে পারবেন। পরবর্তীতে সাবডোমেইন থেকে .com, .net, .org সহ বিভিন্ন উচ্চমানের ডোমেইনে ওয়েবসাইট পরিবর্তন করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে টাকা দিয়ে যেকোনো ডোমেইন-হোস্টিং প্রোভাইডার কম্পানি থেকে ডোমেইন কিনে নিতে হবে।

ব্লগার ফ্রি ওয়েবসাইটে কি গুগল এডসেন্স পাওয়া যায়?

যেহেতু, ব্লগার গুগলেরই একটি সার্ভিস সেহেতু খুব সহজেই এখানে গুগল এডসেন্স পাওয়া যায়। কিন্তু সেখানে একটি সমস্যা হলো, গুগল এডসেন্স থেকে প্রাপ্ত উপার্জন থেকে ব্লগার কিছুটা রেখে দেয়। কেননা, এখানে আপনি ফ্রি হোস্টিং ব্যবহার করছেন। অন্যান্য সফটওয়্যার যেমন ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে সাইট বানাতে গেলে আপনাকে ডোমেইনের সাথে আবার হোস্টিং কিনতে হচ্ছে।

তাই ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে এডসেন্স থেকে যা উপার্জন করেন তা সম্পূর্নটাই আপনার, কিন্তু ব্লগারে অর্জিত উপার্জনের কিছু অংশ ব্লগার নিজে রেখে দেয়।

আমি কিভাবে ব্লগারের মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারি

ব্লগারের মাধ্যমে টাকা আয়ের অনেক পথই রয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে সহজ পথ হলো গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে টাকা উপার্জন। তাছাড়া, এফিলিয়েট মার্কেটিং, ডিজিটাল মার্কেটিং, স্পন্সর রিভিউ সহ অনেকভাবেওই ব্লগারের মাধ্যমে আপনি চাইলে টাকা উপার্জন করতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ ব্লগিং করে আয় করার সহজ কিছু উপায়

ফ্রিতে ব্লগার ছাড়াও আর কি কি উপায়ে ওয়েবসাইট বানানো যায়?

ব্লগার ছাড়াও ফ্রিতে অনেক উপায়ে ওয়েবসাইট বানানো যায়। যেমন: wordpress.com, wix.com, yola.com, infinity.com সহ অনেক ধরনের ফ্রি ওয়েবসাইট বানানোর সার্ভিস রয়েছে। কিন্তু সেসকল সার্ভিস কেবলমাত্র অনুশীলন করার জন্য ব্যবহার করা উচিত। অর্থ আয়ের জন্য অথবা প্রোফেশনালভাবে ফ্রিতে ব্লগিং করার জন্য ব্লগার ব্যবহার করাটাই ভালো হবে। আর যদি আরো প্রোফেশনালভাবে ব্লগিং করতে চান তাহলে ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট বানানোর পরামর্শ রইলো।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close