ylliX - Online Advertising Network৫ টি ওপায়ে ইনকাম করুন ব্লগিং করার মাধ্যমে - Tech BD Tricks

৫ টি ওপায়ে ইনকাম করুন ব্লগিং করার মাধ্যমে

৫ টি ওপায়ে ইনকাম করুন ব্লগিং করার মাধ্যমে

ব্লগিং করে কিভাবে আয় করা যায়? ৫ টি ওপায়ে ইনকাম করুন ব্লগিং করার মাধ্যমে ? আর আজকের এই আর্টিকেলটাতে আমি এই বিষয়টা নিয়ে আলোচনা করবো। অর্থাৎ আপনার যদি ব্লগ ওয়েবসাইট থেকে থাকে বা আপনি যদি ভাল ব্লগ লিখতে পারেন তাহলে আপনি ব্লগিং করেই লাইফটাইম আয় করতে পারেন। আর ব্লগিং করে কিভাবে আয় করা যায় সে বিষয়ে জানার আগে আপনাকে ব্লগ কি। আপনি যদি যেনে থাকেন তাহলে দেট্স গুড। আর যদি না যেনে থাকেন তাহলে আমার এই আর্টিকেলটি পডে ব্যাসিক ধারনা নিতে পারেন।



তো আপনি তো যেনেই গেলেন ব্লগ কি তাহলে এখন আমরা কথা বলবো ব্লগিং করে কিভাবে আয় করা। আসলে ব্লগিং করে আয় করার অনেক অনেক মাধ্যম রয়েছে। তার মধ্যে থেকে আমি আজকে কিছু ওপায় নিয়ে কথা বলবো যেগুলোকে আমি সবথেকে ভালো মনে করি। শুধু আমি না যায় ডিজিটাল মার্কেটার বা এক্সপার্ট আছে বা ডিজিটাল মার্কেটিং এ কাজ করেন তারাও এগুলোকেই বলে থাকেন।

 

প্রথমেই রয়েছে এফিলিয়েট মার্কেটিং




আপনার সাইটে যদি কিছু পরিমান ভিসিটর থাকে তাহলে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করতে পারেন। কারন, এফিলিয়েট মার্কেটিং হতে পারে আপনার লাইফ টাইম ইনকাম সোর্স। এফিলিয়েট মারকেটিং বলতে মূলত আপনি ব্লগ লিখছেন সেই ক্ষেত্রে কোন কোম্পানির প্রোডাক্ট এর লিংক অথবা প্রোডাক্ট ইমেজ আপনার সাইটের সাইট বারে বা পেষ্টের মাঝে এড করে দিলেন এবং কোন ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইট থেকে যদি সেই লিঙ্কে ক্লিক করে গিয়ে ওই প্রডাক্ট টা কিনে অথবা আপনার ব্যানারে ক্লিক করে গিয়ে ওই প্রোডাক্টটা কিনে তাহলে মূলত একটা কমিশন পাবেন আর এটাই হচ্ছে মূলত এফিলিয়েট মার্কেটিং। এক্ষেত্রে আপনাকে কোনো প্রকার কোনো হ্যাসালে পড়তে হবে না। আমি এখানে কোন কঠিন নিয়ম নেই।


গুগোল এডসেন্স




আপনি যদি ব্লগিং করে থাকেন তাহলে এটা আপনার জন্য এটি হতে পারে লাইফটাইম ইনকাম সোর্স। অনলাইনে যতগুলো অ্যাডমিডিয়া রয়েছে বা প্ল্যাটফর্ম রয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে বেস্ট হচ্ছে মূলত গুগোল অ্যাডসেন্স। আপনি যদি গুগোল এডসেন্স এর এপ্রুভাল একবার পেয়ে যান ডাহলে আপনি এটা থেকে লাইফ টাইমনইনকাম করতে পারবেম। আপনাকে যদি আপনার লাইফটাইম গুগল এডসেন্স ব্যবহার করে ইনকাম করতে পারেন এটা হতে পারে আপনার পার্মানেন্ট ফুল টাইম ইনকাম করার একটি সুযোগ। এর জন্য আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগে বেস্ট কোয়ালিটি ২০-২৫ টি আর্টিকেলস এবং প্রতি আর্টিকেলে 1000+ ওয়াডস থাকলে সবচেয়ে বেটার হয়। আপনার টপিক যদি ক্লিয়ার হয় এবং গুগোল অ্যাডসেন্সের ক্রাইটোরিয়া বা নিয়ম মেনে যদি আপনি আপনার ওয়েবসাইটটি সাজান এবং পোষ্টগুলো লিখেন তাহলে আপনি খুব সহজেই গুগোল অ্যাডসেন্সে অ্যাপ্রুভাল পেয়ে যাবেন।

 

এডস্পেস সেল


আপনার যে ওয়েবসাইটটি রয়েছে তাতে যদি খুব ভালো পরিমানে ভিসিটর থাকে তাহলে আপনি সেখানে আপনার ওয়েবসাইটের স্পেস সেল করেও ভালো পরিমানে ইনকাম করতে পারবেন। এখানে স্পেস সেল বলতে বোঝানো হয়েছে আপনার সাইটবারে বা হেডারে যে খালি যায়গা গুলো রয়েছে সেগুলো আপনি সাময়িল সময়ের জন্য সেল করবেন এবং ক্রেতা সেখানে তার কম্পানির এডস বসাবে। যার মাধ্যমে আপনি কিন্তু অনেক ভালো পরিমানে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তবে তার জন্য আপনাকে অবস্যই সাইটে ভালো ভিসিটর রাখতে হবে বা আনতে হবে। আপনি যদি আপনার সাইটের স্পেস সেল করতে চান তাহলে এই কাজে আপনাকে হেল্প করতে পারে buysellads.com আওনাকে এই সাইটটি ভিসিট করে সেখানে আপনার ওয়েবসাইটের সকল ইনফরমেশন এবং আপনার ওয়েবসাইটের ক্যাটাগরি দিয়ে ওয়েব সাইট সাবমিট করবেন। তারা যদি আপনার ওয়েবসাইট রিভিও করে নিবে। যদি তারা এপৃরুভ করে নেয় তাহলে তারা আপনার ওয়েবসাইটের এডস এবং ফেডারেশন করতে পারবেন ওই নাম্বার ফোন চাইবে। তারপর আপনাকে তারা এডস দেবে।




ডিজিটাল প্রডাক্ট সেল




আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগে যদি কিছু পরিমান ভিসিটর থাকে তাহলে আপনি ডিজিটাল প্রোডাক্ট সেল করে ইনকাৃ করতে পারবেম। আপনি বপনার ভিসিটরস দের জন্য ডিজিলাম প্রডাক্ট বানাতে পারবেন। এটি হতে পারে আপনার কোন বই বা ebook বা অন্য কোনো ডিজিটাল ভার্চুয়াল প্রডাক্ট। মনে করেন আপনার ওয়েবসাইটে দৈনিক 100 ভিজিটর থাকে। আপনি যদি একটু কষ্ট করেন এবং ডিজিটাল প্রডাক্ট বানিয়ে আপনার অডিয়েন্স বা ভিসিটরসদেরকে সেল করেন তাহলে আপনি ভালো অ্যামাউন্ট ইনকাম করতে পারবেন এবং এক্ষেত্রে আপনাকে কোন থার্ডপার্টি লাগবেনা, আপনাকে কোন হেল্প করতে হবে না, জাস্ট পারচেজ অপশন রাখবেন এবং আপনার পেপাল তাদেরকে পেমেন্ট রিসিভ বা আপনার যে প্রিমিয়ার একাউন্ট থাকলে তার মাধ্যমে তাদের থেকে পেমেন্ট নিয়ে আসতে পারবেন।


ফটোগ্রাফি




আপনি যদি একজন ফটোগ্রাফার হয়ে থাকেন তাহলে আপনি চাইলে আপনার ফটোগ্রাফি সার্ভিস অনলাইন সেল করতে পারেন। আপনি আপনার অডিয়েন্সদেরকে আপনার এই ফটোগ্রাফি সার্ভিস সেল করতে পারেন। তারা আপনার সার্ভিসটি নিলে আপনি এখান থেকে ইনকাম করতে পারবেন। যা অনেক ভালো একটা এমাউন্ট।

 

তাছাডা আপনি আপনার ওয়েবসাইটে ভালো ভিসিটর আনতে পারলে পরে যদি আপনি চান যে আপনি আর এই ওয়েবসাইটটি চালাবেন না তাহলে কিন্তু আপনি সেটাকে বিক্রি করে দিয়ে বেশ ভালো পরিমানে টাকা পেয়ে যারেন। অর্থাৎ আপনি আপনার ওয়েবসাইটে ভিসিটরস আনতে পারলে আপনার ইনকাম হবেই। তবে এগুলো তো আর একদিনে আসবে না। আপনার ধৈর‌্য ধারন করে কাজ করে যেতে হবে। তবেই আপনি সফল হবেন।

 

তো আশা করি আজকের পোষ্টাটি (৫ টি ওপায়ে ইনকাম করুন ব্লগিং করার মাধ্যমে) আপনার জন্য একটু হলেও উপকার করেছে। ভালো লাগলে পোষ্টটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। আজ এখানেই শেষ করবো।

 

আরো পডুনঃ

 

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »
Share via
Copy link